টেকনাফ সরকারি কলেজ

ইনকোর্স পরীক্ষায় অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অনিয়ম-দুর্নীতি যেন পিছু ছাড়ছে না টেকনাফ সরকারি কলেজের। এবার বিএ, বিএসএস ও বিবিএস ১ম বর্ষের ইনকোর্স পরীক্ষায় অনিয়ম ও অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, টেকনাফ সরকারি কলেজে বিএ, বিএসএস ও বিবিএ ১ম বর্ষের ইন কোর্স পরীক্ষা শুরু হয়েছে গত ১৬ সেপ্টেম্বর। শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকল বিষয়ের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। এতে অংশগ্রহণকারী ৬০ পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো রশিদ প্রদান না করেই প্রতি বিষয়ের জন্য ৩০০ টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের অফিস সহায়ক পলাশ পাল পরীক্ষা শুরুর আগে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে এই টাকা বুঝে নেন। শুধু তাই নয় কোনো লিখিত পরীক্ষা ছাড়াই শুধু মৌখিক পরীক্ষা নিয়েই ইনকোর্স পরীক্ষা সম্পন্ন করছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। আবার ১ম বর্ষের জন্য দুটি ইনকোর্স পরীক্ষার নিয়ম থাকলেও পরীক্ষা নিয়েছেন ১টি। কয়েকজন পরীক্ষার্থীর সঙ্গে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কথা বলতে চাইলে আতঙ্কে তারা কথা বলতে চাননি। ছাত্ররা বলছেন, যদি স্যাররা জানেন আমরা তথ্য দিয়েছি তাহলে আমাদের ফেল করিয়ে দিতে পারেন।

এদিকে পরীক্ষা নিয়ে দুর্নীতির অনুসন্ধানের খবর পেয়ে শনিবার সমাজ বিজ্ঞান পরীক্ষাটি লিখিত আকারে নেয়া হয়েছে। তবে যথারীতি ৩০০ টাকা করে আদায় করা হয়েছে। এছাড়া শনিবারের লিখিত পরীক্ষার ছবি তুলে রাখা হয়েছে যাতে কোন তদন্ত হলে তাতে লিখিত পরীক্ষা হয়েছে বলে দেখাতে পারে। এছাড়া পরীক্ষার্থীদের সন্দেহের চোখে দেখা হচ্ছে সাংবাদিককে তথ্য সরবরাহকারী হিসেবে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশানুযায়ী বিএ, বিএসএস ও বিবিএস’র প্রত্যেক বিষয়ে ১০০ নাম্বারের মধ্যে লিখিত পরীক্ষা হবে ৮০ নাম্বারের বাকি ২০ নাম্বার হাতে থাকবে সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃপক্ষের। আর প্রথম বর্ষে দুটি ইনকোর্স পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। কলেজ কর্তপক্ষ ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাসে উপস্থিতি, আচরণ, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে এই ২০ নাম্বার প্রদান করবেন। ইনকোর্স পরীক্ষায় প্রতি বিষয়ের জন্য সর্বোচ্চ একশত টাকা নেয়ার নিয়ম রয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অফিস সহায়ক পলাশ জানান, প্রতি বিষয়ের জন্য দুইশত টাকা করে নেয়া হচ্ছে। আর কোনো পরীক্ষার্থী চা খাওয়ার জন্য বখশিশ হিসেবে অতিরিক্ত টাকা দিলে তা নিচ্ছেন বলে জানান।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে জানতে চাইলে টেকনাফ ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শেখ জয়নাল আবেদীন কলেজে গিয়ে সাক্ষাতে কথা বলার অনুরোধ করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×