নবাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চার বছরেও চালু হয়নি

  বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হয় ২০১৫ সালের ১২ জুলাই। এলাকাবাসীর দাবি, আর কত দিন এভাবে পড়ে থাকবে এ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি। সরেজমিন দেখা যায়, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটির জন্য যা যা দরকার, তার সবই আছে; কিন্তু অনেক জানালার পাল্লা ভাঙা। দেখলেই মনে হবে দীর্ঘদিন থেকে কেউ এর মধ্যে আসেনি। ভাঙা দরজা দিয়ে গরু-ছাগল ভেতরে ঢুকে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এছাড়া গেট ভাঙা, পানি-বিদ্যুতের সংযোগ নেই, দরজা-জানালা ভাঙা, জ্বালানি স্টেশনের সাটার নেই, অন্যান্য আসবাবপত্রও নেই। নবাবগঞ্জ বাজারের সুলতান বলেন, আমরা হয়তো ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি চালু অবস্থায় দেখতে পাব না। চার বছর আগে এমপি শিবলী সাদিক উদ্বোধন করেছিলেন; কিন্তু আজ পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসটি চালু হচ্ছে না। এলাকাবাসী হাসেম, রনজু, বিপ্লব, মিন্টু, হাবিব, সাদ্দাম, রফিকুল, মাসুদ, রাজু, আসাদুল- সবার দাবি, যত দ্রুত সম্ভব এই ফায়ার সার্ভিসটি চালু করা হউক। নবাবগঞ্জ বাজারের চা বিক্রেতা ফরহাদ বলেন, আমরা সব সময় আগুন নিয়ে কাজ করি। এছাড়া গ্রামে প্রতিনিয়ত আগুন লাগে। তাই নিজ এলাকায় একটি ফায়ার সার্ভিস থাকা খুবই জরুরি।

বিরামপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বেশকিছু দিন আগে নবাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসটি পরিচালনার জন্য স্টাফ নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ওয়াটার ট্রেন্ডার গাড়ি, কল গাড়ি, ২টি টিও হুইলার মোটরবাইকসহ অনেক জিনিস বরাদ্দ হলেও এই ফায়ার সার্ভিস চালু হচ্ছে না।

বিভিন্ন স্টেশনে অতিরিক্ত হিসেবে যেসব ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্টাফ আছেন, তাদের মধ্য থেকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন বলেন, আমাকে নবাবগঞ্জ নতুন ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে নিয়োগ দেয়া হয়েছে; কিন্তু ভবনটি হস্তান্তর না হওয়ায় সেখানে যেতে পারছি না। একটি ফায়ার সার্ভিস চালু হতে যা যা দরকার, সবই আমাদের আছে। এ ব্যাপারে ঠিকাদার দিনাজপুর মেসার্স মাহাবুব ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মাহাবুব রহমানের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে বলেন, আমার কাজ বিল্ডিং তৈরি করা। আমি বিল্ডিংয়ের কাজ শেষ করেছি দুই থেকে আড়াই বছর আগে। শুনেছি ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের লোকবলের সমস্যা। হস্তান্তর না হওয়ায় আমার অনেক ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে। পুনরায় সবকিছু মেরামত করতে হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিস রংপুর বিভাগীয় প্রধান ইউনুস আলী বলেন, গণপূর্ত বিভাগের কিছু কাজ বাকি থাকায় আমরা হস্তান্তর নিতে পারিনি। দিনাজপুর গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলীদের বারবার কল দিলেও ফোন রিসিভ করেন না। নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মশিউর রহমান বলেন, বেশকিছু দিন হল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেছেন। বর্তমান গণপূর্ত বিভাগের মাধ্যমে হস্তান্তর হলেই ফায়ার সার্ভিসটি চালু হবে।

নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করার পরও কেন এত সময় নিচ্ছে, তা এলাকাবাসীসহ আমাদের ভাবিয়ে তুলেছে। আমি চেষ্টা করছি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব যেন ফায়ার সার্ভিসটি চালু করা যায়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×