বিলোনিয়া স্থলবন্দর ৮ বছরেও পূর্ণতা পায়নি

  শেখ ফরিদ রতন, ফুলগাজী ও পরশুরাম ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফেনীর পরশুরামের বিলোনিয়া স্থলবন্দর ২০০৯ সালে ঝাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে চালু হলেও অবকাঠামো বলতে কিছুই নেই। উদ্বোধনের পর থেকে পরিত্যক্ত একটি ভবনে বন্দর শুল্ক স্টেশনের কার্যক্রম চলে আসছে। উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বন্দরের জন্য পুলিশ ইমিগ্রেশন অফিস ভবন নির্মাণ কাজের টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। কিন্তু ২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা ব্যয় ভবনের নির্মাণ কাজ শুর করলেও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) বাধার কারণে বর্তমানে ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। অপরদিকে বন্দরের ওপেন ইয়ার্ডসহ বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণের জন্য জমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। শুল্ক স্টেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রাজস্ব কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক বলেন, এখানে একমুখী রফতানি কারণে প্রায় ৭শ’ কোটি টাকা বৈদেশিক মুদ্রা আয় হয়েছে। বন্দরের পুলিশ ইমিগ্রেশন অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শুল্ক স্টেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দ্বারা যাত্রীদের হয়রানির কারণে লোকজন ওই মুহুরি ঘাট অর্থাৎ বিলোনিয়া বন্দর দিয়ে যাতায়াত করতে অনিহা দেখাচ্ছে। নাম না প্রকাশ শর্তে স্থানীয় অনেক ব্যক্তি অভিযোগ করেন পুলিশ ও শুল্ক স্টেশনের কর্মকর্তাদের টাকা না দিলে বিভিন্ন অজুহাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসিয়ে রেখে হয়রানি করে থাকেন। পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রহুল আমিন জানান, বর্তমানে অবকাঠামো দিক থেকে উন্নয়ন না হলেও বিলেনিয়া স্থলবন্দর শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরে উন্নীত হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter