৩৯ জেলে ও বিক্রেতার দণ্ড
jugantor
মা ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা
৩৯ জেলে ও বিক্রেতার দণ্ড
বিভিন্ন স্থানে জাল ও ট্রলার জব্দ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১০ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রজনন নিশ্চিত করতে সারা দেশে ইলিশ ধরায় ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার প্রথম দিন বুধবার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় মৎস্য বিভাগসহ প্রশাসন। এ সময় ৩৯ জেলে ও মাছ বিক্রেতাকে আটক করে জেল-জরিমানা করা হয়। অভিযানে জব্দ হয় বিপুল পরিমাণ জাল ও ট্রলার। বাউফলে ট্রলার থেকে প্রকাশ্যে ইলিশ বিক্রির ঘটনা ঘটেছে। যুগান্তর প্রতিনিধিরা জানান-

বাউফল : পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া মাছ বাজার সংলগ্ন খালে বুধবার সকালে একটি ফিশিং ট্রলারযোগে বিপুল পরিমাণ ইলিশ নিয়ে আসে কিছু অসাধু মাছ ব্যবসায়ী। এ সময় ২শ’ টাকা কেজি হিসেবে দাম হেঁকে বিভিন্ন সাইজের অন্তত ২০ মণ ইলিশ বিক্রি করা হয়। দামে কম হওয়ায় তা লুফে নিতে ভির জমায় অনেকে। এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. জাসিম উদ্দিন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই।

ভোলা : নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় প্রথম দিন বুধবার ১২ জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছে প্রশাসন। সাজাপ্রাপ্ত জেলেরা হচ্ছে সিরাজ মাঝি, মো. জাহাঙ্গীর মাঝি, মো. দুলাল হাওলাদার, হান্নান মোল্লা, আবদুর রহিম, চরফ্যাশনের মো. কামাল হোসেন, মো. হেলাল উদ্দিন, মো. আবদুর রশিদ, মো. জসিম উদ্দিন ও মো. ইলিয়াস।

চরফ্যাশন (ভোলা) : ইলিশসহ দুটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলার জাল জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত ইলিশ এতিমখানা এবং মাদ্রাসায় বিতরণ করে দেয়া হয়। এছাড়াও আহম্মদপুর ইউনিয়নের মায়া ব্রিজ এলাকা থেকে নোঙর করা একটি মাছ ধরা ট্রলার আটক করে মাছ জব্দ করা হয়।

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) : কমলনগরে প্রজনন মৌসুমে ডিমওয়ালা ইলিশ ধরার দায়ে ১৪ জন জেলেকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাদের প্রত্যেককে এক মাসের করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বুধবার ইউএনও ইমতিয়াজ হোসেন এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন জেলে মো. ফারুক, আমির হোসেন, আনোয়ার হোসেন, মো. আজগর, মো. রিপন, হাসান, জাহাঙ্গীর আলম, আলা উদ্দিন, মো. সুজন, শাহিন, হেলাল, আরিফ, মো. গনি, মুসা কালিমুল্লাহ।

স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) : স্বরূপকাঠিতে আইন অমান্য করে ইলিশ বিক্রি ও পরিবহন করার অপরাধে ৮ ব্যক্তিকে পাঁচ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। মিয়ারহাট বাজারে ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বেশ কিছু ইলিশ ও সামুদ্রিক মাছসহ সুনিল, সদানন্দ, শিমুল, কেশব রায়, নিখিল, বাবুল লাল বিশ্বাস, রবিউল ও ইব্রাহিমকে আটক করা হয়। বুধবার দুপুরে গ্রেফতার ব্যক্তিদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে হাজির করা হলে তাদের প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

ভৈরব : ইলিশ বিক্রির অভিযোগে তিন মাছ ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার টাকা করে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযুক্তরা হল নুরু মিয়া, আরশ মিয়া ও গোলাপ মিয়া। এ সময় ৭৫ কেজি ওজনের ১৩৫টি মা ইলিশ জব্দ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার সকালে ভৈরব শহরের চণ্ডিবের পংকু মিয়া মাছ বাজারে এ জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা।

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) : ৫ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ২ মণ ইলিশ উদ্ধার করা হয়েছে। কলাগাছিয়া সংলগ্ন নদীতে মৎস্য বিভাগ ও কোস্টগার্ড অভিযান চালিয়ে ৫ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল উদ্ধার করেছে। গহিনখালী ঘাটে মৎস্য বিভাগ ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে চরমোন্তাজ থেকে যাত্রীবাহী ‘রূপসী তুষার’ লঞ্চ এবং একটি ট্রলার থেকে প্রায় ২ মণ ইলিশ উদ্ধার করে।

বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) : ইলিশ মাছ বিক্রির দায়ে আকবর আলী নামে এক মাছ ব্যবসায়ীকে আটক করে জরিমানা আদায় ও মাছ জব্দ করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার বেরুলী বাজারে মৎস্য কর্মকর্তা রবিউল হকের সহযোগিতায় অভিযান চালান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহ মো. সজিব।

কালকিনি (মাদারীপুর) : কালকিনিতে প্রকাশ্যে বাজারে মা ইলিশ বিক্রিকালে স্বপন দাশ (৪৫) নামের এক মাছ ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে তাকে উপজেলার খাশেরহাট বাজার থেকে আটক করে পুলিশ। আটককৃত ব্যবসায়ী উপজেলার বাশগাড়ী এলাকার ছয়ঘর গ্রামের পরান দাশের ছেলে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বাগেরহাট : শরণখোলা উপজেলা প্রশাসন বলেশ্বর নদীতে অভিযান চালিয়ে ৫ হাজার মিটার জাল আটক করেছে। আটককৃত জাল বুধবার দুপুরে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। এ সময় নিষেধাজ্ঞা অমান্যকারী অসাধু জেলেদের আটক করা যায়নি।

মা ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

৩৯ জেলে ও বিক্রেতার দণ্ড

বিভিন্ন স্থানে জাল ও ট্রলার জব্দ
 যুগান্তর ডেস্ক 
১০ অক্টোবর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

প্রজনন নিশ্চিত করতে সারা দেশে ইলিশ ধরায় ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার প্রথম দিন বুধবার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় মৎস্য বিভাগসহ প্রশাসন। এ সময় ৩৯ জেলে ও মাছ বিক্রেতাকে আটক করে জেল-জরিমানা করা হয়। অভিযানে জব্দ হয় বিপুল পরিমাণ জাল ও ট্রলার। বাউফলে ট্রলার থেকে প্রকাশ্যে ইলিশ বিক্রির ঘটনা ঘটেছে। যুগান্তর প্রতিনিধিরা জানান-

বাউফল : পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া মাছ বাজার সংলগ্ন খালে বুধবার সকালে একটি ফিশিং ট্রলারযোগে বিপুল পরিমাণ ইলিশ নিয়ে আসে কিছু অসাধু মাছ ব্যবসায়ী। এ সময় ২শ’ টাকা কেজি হিসেবে দাম হেঁকে বিভিন্ন সাইজের অন্তত ২০ মণ ইলিশ বিক্রি করা হয়। দামে কম হওয়ায় তা লুফে নিতে ভির জমায় অনেকে। এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. জাসিম উদ্দিন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই।

ভোলা : নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় প্রথম দিন বুধবার ১২ জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছে প্রশাসন। সাজাপ্রাপ্ত জেলেরা হচ্ছে সিরাজ মাঝি, মো. জাহাঙ্গীর মাঝি, মো. দুলাল হাওলাদার, হান্নান মোল্লা, আবদুর রহিম, চরফ্যাশনের মো. কামাল হোসেন, মো. হেলাল উদ্দিন, মো. আবদুর রশিদ, মো. জসিম উদ্দিন ও মো. ইলিয়াস।

চরফ্যাশন (ভোলা) : ইলিশসহ দুটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলার জাল জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত ইলিশ এতিমখানা এবং মাদ্রাসায় বিতরণ করে দেয়া হয়। এছাড়াও আহম্মদপুর ইউনিয়নের মায়া ব্রিজ এলাকা থেকে নোঙর করা একটি মাছ ধরা ট্রলার আটক করে মাছ জব্দ করা হয়।

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) : কমলনগরে প্রজনন মৌসুমে ডিমওয়ালা ইলিশ ধরার দায়ে ১৪ জন জেলেকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাদের প্রত্যেককে এক মাসের করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বুধবার ইউএনও ইমতিয়াজ হোসেন এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন জেলে মো. ফারুক, আমির হোসেন, আনোয়ার হোসেন, মো. আজগর, মো. রিপন, হাসান, জাহাঙ্গীর আলম, আলা উদ্দিন, মো. সুজন, শাহিন, হেলাল, আরিফ, মো. গনি, মুসা কালিমুল্লাহ।

স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) : স্বরূপকাঠিতে আইন অমান্য করে ইলিশ বিক্রি ও পরিবহন করার অপরাধে ৮ ব্যক্তিকে পাঁচ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। মিয়ারহাট বাজারে ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বেশ কিছু ইলিশ ও সামুদ্রিক মাছসহ সুনিল, সদানন্দ, শিমুল, কেশব রায়, নিখিল, বাবুল লাল বিশ্বাস, রবিউল ও ইব্রাহিমকে আটক করা হয়। বুধবার দুপুরে গ্রেফতার ব্যক্তিদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে হাজির করা হলে তাদের প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

ভৈরব : ইলিশ বিক্রির অভিযোগে তিন মাছ ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার টাকা করে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযুক্তরা হল নুরু মিয়া, আরশ মিয়া ও গোলাপ মিয়া। এ সময় ৭৫ কেজি ওজনের ১৩৫টি মা ইলিশ জব্দ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার সকালে ভৈরব শহরের চণ্ডিবের পংকু মিয়া মাছ বাজারে এ জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা।

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) : ৫ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ২ মণ ইলিশ উদ্ধার করা হয়েছে। কলাগাছিয়া সংলগ্ন নদীতে মৎস্য বিভাগ ও কোস্টগার্ড অভিযান চালিয়ে ৫ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল উদ্ধার করেছে। গহিনখালী ঘাটে মৎস্য বিভাগ ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে চরমোন্তাজ থেকে যাত্রীবাহী ‘রূপসী তুষার’ লঞ্চ এবং একটি ট্রলার থেকে প্রায় ২ মণ ইলিশ উদ্ধার করে।

বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) : ইলিশ মাছ বিক্রির দায়ে আকবর আলী নামে এক মাছ ব্যবসায়ীকে আটক করে জরিমানা আদায় ও মাছ জব্দ করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার বেরুলী বাজারে মৎস্য কর্মকর্তা রবিউল হকের সহযোগিতায় অভিযান চালান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহ মো. সজিব।

কালকিনি (মাদারীপুর) : কালকিনিতে প্রকাশ্যে বাজারে মা ইলিশ বিক্রিকালে স্বপন দাশ (৪৫) নামের এক মাছ ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে তাকে উপজেলার খাশেরহাট বাজার থেকে আটক করে পুলিশ। আটককৃত ব্যবসায়ী উপজেলার বাশগাড়ী এলাকার ছয়ঘর গ্রামের পরান দাশের ছেলে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বাগেরহাট : শরণখোলা উপজেলা প্রশাসন বলেশ্বর নদীতে অভিযান চালিয়ে ৫ হাজার মিটার জাল আটক করেছে। আটককৃত জাল বুধবার দুপুরে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। এ সময় নিষেধাজ্ঞা অমান্যকারী অসাধু জেলেদের আটক করা যায়নি।