আইসিটি প্রশিক্ষণ কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে

মনিরামপুরে সহকারী প্রোগ্রামারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

  মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যশোরের মনিরামপুর উপজেলা আইসিটি ট্রেনিং অ্যান্ড রিসোর্স সেন্টারের সহকারী প্রোগ্রামার অরিন্দম মণ্ডলের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতিসহ অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে প্রতিবাদ করায় ইতিমধ্যে শিক্ষকদের আইসিটি প্রশিক্ষ কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিয়েছেন তিনি। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বেনবেইস) মহাপরিচালকসহ বিভিন্ন দফতরে বেসিক কোর্সের ছয়জন প্রশিক্ষক লিখিত অভিযোগ করেছেন।

জানা যায়, মনিরামপুর উপজেলা আইসিটি ট্রেনিং অ্যান্ড রিসোর্স সেন্টারে প্রধান দায়িত্বে রয়েছেন সহকারী প্রোগ্রামার অরিন্দম মণ্ডল। অভিযোগ উঠেছে, অরিন্দম মণ্ডলের সীমাহীন অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে বর্তমান প্রশিক্ষণ কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে। এখানে সকাল-বিকাল দুই ব্যাচে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রতি ব্যাচে ২৪ জন শিক্ষক অংশ নেন। আইসিটি বেসিক কোর্সে ছয়জন এবং হার্ডওয়ার ট্রাবলশুটিং কোর্সে তিনজন প্রশিক্ষক রয়েছেন। অভিযোগ রয়েছে, বেসিক কোর্সে ছয়জন প্রশিক্ষক থাকা সত্ত্বেও ট্রাবলশুটিং কোর্সের প্রশিক্ষক মনোজিত বিশ্বাসকে বেসিক কোর্সের প্রশিক্ষণে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। অথচ ট্রাবলশুটিংয়ের তিনটি ব্যাচে বেসিক কোর্সের কোনো প্রশিক্ষককে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। শুধু তাই নয়, সহকারী প্রোগ্রামার অরিন্দম মণ্ডল প্রশিক্ষকদের বঞ্চিত করে নিজেই প্রশিক্ষক সেজে ক্লাস নিয়ে সম্মানি ভাতা উত্তোলন করে আসছেন। এছাড়াও প্রশিক্ষাণার্থীদের জন্য সরকার প্রতিদিন সম্মানি ভাতা ছাড়াও অতিরিক্ত ৫০ টাকা বরাদ্দ করে নাশতার জন্য। কিন্তু অরিন্দম মণ্ডল ৫০ টাকার পরিবর্তে মাত্র ১৫ টাকার নাশতা সরবরাহ করে থাকেন। অন্যদিকে বিদ্যুৎ বিভ্রাট হলে জেনারেটর চালুর জন্য প্রতি ব্যাচে বরাদ্দ রয়েছে ৪ হাজার টাকা। কিন্তু বিদ্যুৎ বিভ্রাট হলে জেনারেটর চালু করা হয় না। ফলে এ সময় প্রশিক্ষণ ক্লাস বন্ধ থাকে। অথচ তিনি ভাউচার দিয়ে বরাদ্দকৃত অর্থ উত্তোলন করেন। তিনি নিজেই রিসোর্স পার্সন সেজে ভাতা উত্তোলন করেন। বেনবেইস থেকে অর্থ বরাদ্দ করা হয় আইসিটি ভবন মেরামতের জন্য। কিন্তু যথাযথভাবে কাজ না করে তিনি সমুদয় অর্থ উত্তোলন করেন। এসব অনিয়ম আর দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় সহকারী প্রোগ্রামার অরিন্দম মণ্ডল ২২ অক্টোবর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বন্ধ করে দেন। ফলে আইসিটি প্রশিক্ষণ কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে। এ নিয়ে শনিবার বেসিক কোর্সের ছয়জন প্রশিক্ষক বেনবেইসের মহাপরিচালকসহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ করেছেন। প্রশিক্ষক মজনুর রহমান জানান, সহকারী প্রোগ্রামার অরিন্দম মণ্ডলের দুর্নীতিন কারণে প্রশিক্ষন কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে। অপর প্রশিক্ষক মিজানুর রহমান, সুজিত বিশ্বাস, সন্তোষ রায়, বিবেকানন্দ বিশ্বাস ও উৎপল বিশ্বাস একই অভিযোগ করে বলেন, অরিন্দম মণ্ডলের অতিরিক্ত লোভের কারণে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ভেস্তে যেতে বসেছে।

তবে সহকারী প্রোগ্রামার অরিন্দম মণ্ডল তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছেন, বেনবেইস থেকে অনলাইনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জরিপ কার্যক্রম সমাপ্ত হলেই আইসিটি প্রশিক্ষণ আবার শুরু করা হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×