এসএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা আদায়

বেতাগী ও আগৈলঝাড়ায় বিপাকে শিক্ষার্থীরা

  বেতাগী (বরগুনা) ও আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বেতাগীতে এসএসসি ফরম পূরণে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। একাধিক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ। স্থানীয়দের অভিযোগ- শিক্ষার্থীদের ইচ্ছাকৃতভাবে টেস্ট পরীক্ষায় অকৃতকার্য দেখিয়ে শিক্ষকরা বিষয়ভিত্তিক আর্থিক বাণিজ্য করেছেন। তবে টাকা নেয়া হলেও কোনো রশিদ দেয়া হয় না। বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ফি মানবিক ও ব্যবসা শাখায় অনলাইন খরচসহ ফরম পূরণে ১ হাজার ৮৫০ টাকা ও বিজ্ঞান শাখায় ফি ১ হাজার ৯৮০ টাকা করে। কিন্তু মোকামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগে ফরম পূরণে ৩ হাজার ৫০০ টাকা, টেস্ট পরীক্ষায় কোনো বিষয়ে অকৃতকার্য হলে আরও ১ হাজার টাকা নেয়া হচ্ছে। এছাড়াও এক্সট্রা (অতিরিক্তি) ক্লাস নেয়ার নামে ১ হাজার ২০০ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এই স্কুলে মানবিক ও ব্যবসা বিভাগে ৩ হাজার ২০০ টাকা করে করে আদায় করেছেন। তবে এসব অর্থ বাণিজ্যের কথা কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি নাহিদ মাহমুদ টিটু।

এছাড়াও বেতাগী সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ২৩০০-২৬০০ টাকা, ছোপখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২৫০০-২৮০০ টাকা, কাউনিয়া এমদাদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২৪০০-২৮০০ টাকা করে, পুটিয়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২৮০০-৩৪০০ টাকা করে, বিবিচিনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২৫০০-২৭০০ টাকা, চান্দখালী ইসাহাক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২২০০-২৭০০ টাকা, কদবানু মেমোরিয়াল বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২৪০০-২৫০০ টাকা, কাইয়ালঘাটা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০০০-২৫০০ টাকা, উপজেলার প্রায় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ফরম পূরণের নামে এমন অর্থ বাণিজ্য করেছেন।

এ বিষয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকরা বলেন, ফরম পূরণে অতিরিক্ত কোনো টাকা নেয়া হয়নি। বোর্ডের নিয়মনীতি মেনেই ফরম পূরণ করেছি। পেছনের কোনো শিক্ষার্থীর পাওনা থাকলে তা নেয়া হয়েছে।

এদিকে বরিশালের আগৈলঝাড়ায় অরিরিক্ত ফি’র মাধ্যমে ফরম পূরণের অভিযোগ রয়েছে। বাড়তি টাকা নেয়া স্কুলগুলো নোটিশ বোর্ডে শুধু বোর্ড ফির কথা উল্লেখ করলেও শিক্ষার্থীদের মৌখিকভাবে অতিরিক্ত টাকার কথা জানিয়ে দিচ্ছেন শিক্ষকরা। কোনো কোনো স্কুলগুলোতে কোচিং ফিসহ ৩৫০০ থেকে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিচ্ছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। অনেক স্কুল ২ হাজার টাকা পর্যন্ত কোচিং ফি আদায় করছে। তারা ‘কোচিং ফির’ পরিবর্তে ‘অতিরিক্ত ক্লাস’ আখ্যা দিয়ে এই টাকা নিচ্ছেন। একাধিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তারা জানান, শুধু বোর্ড ফি নিয়েই ফরম পূরণ করছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও বারপাইকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুনীল কুমার বাড়ৈ জানান, সমিতির সভায় বোর্ড ফি নিয়ে ফরম পূরণের সিদ্ধান্ত দেয়া হয়েছে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের কোচিং ফি বাবদ ১৫শ’ টাকা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। যদি কোনো স্কুল সিদ্ধান্ত অমান্য করে তাদের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×