কনের মা ও বাবাকে জরিমানা
jugantor
চুয়াডাঙ্গা বোয়ালমারী ও কাউনিয়ায় বাল্যবিয়ে
কনের মা ও বাবাকে জরিমানা

  চুয়াডাঙ্গা, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি  

০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চুয়াডাঙ্গায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শর্মী খাতুন। সদর উপজেলা প্রশাসনের ত্বরিত পদক্ষেপে তার বাল্যবিয়ের আয়োজন ভেস্তে যায়। তবে বিয়ের আয়োজন করায় তার মা সোনাভানু খাতুনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শঙ্করচন্দ্র গ্রামে সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া শর্মী খাতুন ওই গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে ও পার্শ্ববর্তী ডিঙ্গেদহ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

এদিকে ফরিদুরের বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরর্দী ইউনিয়নের শ্রীনগর গ্রামে বাল্যবিয়ের অভিযোগে কনের মাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার সন্ধ্যায় পাশের সালথা উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের উতারউদ্দিনের ছেলে ইমামুলের সঙ্গে কিশোরীর বিয়ের দিন ধার্য ছিল। খবর পেয়ে ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঝোটন চন্দ কনের বাড়িতে হাজির হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় বর পক্ষ পালিয়ে গেলেও কনের মাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অপরদিকে রংপুরের কাউনিয়া উপজেলায় বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করার অপরাধে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উলফৎ আরা বেগম গত সোমবার রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে কনের বাবার ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকার ফারুক হাসান জানান, রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়নের নিলাম খরিদা সদরা গ্রামে ৪ মাস আগে আ. লতিফের কন্যা দশম শ্রেণির ছাত্রী লতিফা আক্তার নীমার সঙ্গে ইউসুব আলীর ছেলে রাজু মিয়ার সঙ্গে বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করে গোপন রাখা হয়।

চুয়াডাঙ্গা বোয়ালমারী ও কাউনিয়ায় বাল্যবিয়ে

কনের মা ও বাবাকে জরিমানা

 চুয়াডাঙ্গা, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি 
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চুয়াডাঙ্গায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শর্মী খাতুন। সদর উপজেলা প্রশাসনের ত্বরিত পদক্ষেপে তার বাল্যবিয়ের আয়োজন ভেস্তে যায়। তবে বিয়ের আয়োজন করায় তার মা সোনাভানু খাতুনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শঙ্করচন্দ্র গ্রামে সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া শর্মী খাতুন ওই গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে ও পার্শ্ববর্তী ডিঙ্গেদহ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

এদিকে ফরিদুরের বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরর্দী ইউনিয়নের শ্রীনগর গ্রামে বাল্যবিয়ের অভিযোগে কনের মাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার সন্ধ্যায় পাশের সালথা উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের উতারউদ্দিনের ছেলে ইমামুলের সঙ্গে কিশোরীর বিয়ের দিন ধার্য ছিল। খবর পেয়ে ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঝোটন চন্দ কনের বাড়িতে হাজির হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় বর পক্ষ পালিয়ে গেলেও কনের মাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অপরদিকে রংপুরের কাউনিয়া উপজেলায় বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করার অপরাধে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উলফৎ আরা বেগম গত সোমবার রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে কনের বাবার ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকার ফারুক হাসান জানান, রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়নের নিলাম খরিদা সদরা গ্রামে ৪ মাস আগে আ. লতিফের কন্যা দশম শ্রেণির ছাত্রী লতিফা আক্তার নীমার সঙ্গে ইউসুব আলীর ছেলে রাজু মিয়ার সঙ্গে বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করে গোপন রাখা হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন