ধামরাইয়ে এইচএসসি পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যা

নেশাখোর ভাইয়ের নির্যাতনে প্রাণ গেল বোনের

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি ৩০ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ধামরাইয়ের বান্নল গ্রামে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। অপরদিকে উত্তর জয়পুরা গ্রামে সাড়ে ছয় ভরি সোনার গহনা ও নগদ আড়াই লাখ টাকার জন্য নেশাখোর বড় ভাইয়ের নির্যাতনে প্রাণ গেল স্বামী পরিত্যক্ত ও পোশাক শ্রমিক ছোট বোনের। এ ঘটনায় পুলিশ ভাইকে আটক করেছে। রোববার দুপুরে পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করেছে। ছুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ দুটি রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় পৃথক দুটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর ধারায় মামলা হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার কুশুরা ইউনিয়নের বান্নল গ্রামের মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের মেয়ে ও ভালুম আতাউর রহমান খান স্কুল অ্যান্ড কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী শেফালী আক্তার শনিবার রাতে মা-বাবার সঙ্গে রাতের খাবার খেয়ে তার শোবার ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। সকাল ১০টা বেজে যাওয়ার পরও তিনি ঘুম থেকে না উঠলে ঘরের লোকজন গিয়ে দেখেন আড়ার সঙ্গে তার লাশ ঝুলছে। অপরদিকে উপজেলার উত্তর জয়পুরা গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের মেয়ে ও এক সন্তানের জননী লাভলী আক্তারের ৬-৭ বছর আগে স্বামীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এরপর থেকেই পিত্রালয়ে বসবাস করে পোশাক কারখানায় চাকরি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন। স্বামীর কাছ থেকে বিদায় নিয়ে আসার সময় মহরানা বাবদ আড়াই লাখ টাকা ও ব্যবহারের সাড়ে ছয় ভরি ওজনের সোনার গহনা নিয়ে আসেন লাভলী। তখন থেকেই ওই গহনা ও টাকার প্রতি লোলুপদৃষ্টি পড়ে বড় ভাই মোশারফ হোসেনের। এ টাকা ও সোনার গহনার জন্য বিভিন্নভাবে নির্যাতন করায় লাভলী ধামরাই পৌর শহরের বরাতনগর মাস্টার ভিলায় বাসা ভাড়া নিয়ে চলে আসেন। শনিবার সন্ধ্যার দিকে লাভলী আক্তার পিত্রালয়ে গেলে রাতে ওই টাকা ও সোনার গহনার জন্য নেশাখোর বড় ভাই মোশারফ তাকে অমানুষিক নির্যাতন করেন। এরপর তার মৃত্যু ঘটলে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে আত্মহত্যা বলে প্রচারণা চালানো হয়। ঘটনাটি জানাজানি হলে ধামরাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত বড় ভাই মোশারফ হোসেনকে আটক ও লাশ উদ্ধার করে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত