‘সেলফ লকডাউনে’ গ্রাম

তালিকা করে বাড়ি বাড়ি পাঠানো হচ্ছে খাদ্যসামগ্রী

  কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি ৩০ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে গ্রামবাসী নিজেরাই লকডাউন করেছেন। বাইরের কেউ গ্রামে প্রবেশ করতে পারছেন না। স্থানীয়রা লকডাউন করায় দুস্থ ও দরিদ্র মানুষের তালিকা করে বাড়িতে পাঠানো হচ্ছে ১০ কেজি চাল, দুই কেজি ডাল ও এক লিটার তেলসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র। প্রয়োজন নিশ্চিত করে গ্রাম থেকে বাইরে এবং বাইরে থেকে গ্রামে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে। বাইরে থেকে প্রবেশের সময় শরীরে জীবাণুনাশক স্প্রে করে দেয়া হচ্ছে। মহামারী এই ভাইরাস থেকে রেহাই পেতে এমনই উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার আনন্দবাগ গ্রামবাসী। গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার আনন্দবাগ গ্রামে প্রায় দুই হাজার মানুষের বসবাস। গ্রামের যুবকরা সময় ভাগ করে রাস্তার মোড়ে কাজ করছেন। পুরো গ্রাম নজদারিতে রাখা হয়েছে। গ্রামের মধ্যে তিনটি রাস্তায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও জীবাণুনাশক স্প্রে নিয়ে বসে থাকে যুবকরা। কেউ এলে তাদের দেয়া হচ্ছে। গ্রামটি নিজেরাই লকডাউন করায় যা যা করণীয় সবকিছুই তারা করেছে। সরকারি নলডাঙ্গা ভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রুহুল আমিন বলেন, গ্রামের সবাই করোনাভাইরাস থেকে রেহাই পেতে এমন উদ্যোগ নিয়েছে। লকডাউন করার ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েই করা হয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রকোপ বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত এভাবে চলবে। গ্রামের সবাই মিলে চেষ্টা করা হচ্ছে গ্রামটিকে সুরক্ষিত রাখার জন্য। তিনি আরও জানান, দায়িত্ব পালনের জন্য একেকটি দল গঠন করা হয়েছে। তারা পালাক্রমে দায়িত্ব পালন করছেন। দায়িত্ব পালনের সময় তারা নিজেরাও মুখে মাস্ক ব্যবহার করছেন।

গ্রামের যুবক জনি হোসেন জানান, করোনাভাইরাসের হাত থেকে গ্রাম সুরক্ষিত রাখতে আমরা এমন উদ্যোগ নিয়েছি। ২৬ মার্চ থেকে আনন্দবাগ গ্রাম লকডাউন করা হয়। এখন খুব প্রয়োজন ছাড়া কেউ গ্রামের বাইরে যেতে পারছে না। সবাইকে আমরা নজরদারিতে রাখছি। গ্রামের বাসিন্দা স্বপন হোসেন জানান, লকডাউন করায় গ্রামের গরিব মানুষদের কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। কিন্তু গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে চাল, ডাল, তেলসহ আনুষঙ্গিক সবকিছুই দেয়া হচ্ছে। করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত রাখতেই আমরা এমন উদ্যোগ নিয়েছি।

এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুবর্ণা রানী সাহা জানান, বিষয়টি তিনি অবগত আছেন। গ্রামবাসীর এই উদ্যোগ অবশ্যই প্রশংসনীয়। তবে সতর্ক থাকতে হবে, যেন জরুরি প্রয়োজন বাধাগ্রস্ত না হয়।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত