কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৩ শতাধিক ঘর ভস্মীভূত
jugantor
কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৩ শতাধিক ঘর ভস্মীভূত
ইটনায় বড়বাজারে আগুন

  উখিয়া ও ইটনা প্রতিনিধি  

১৩ মে ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে তিন শতাধিক রোহিঙ্গার ঘর ও দোকান পুড়ে গেছে। কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে অগ্নিকাণ্ডে কেউ হতাহত হয়নি বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

এদিকে ইটনা উপজেলা সদরের বড় বাজারের মাছ মহালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাত ২ ঘটিকায় মাছ মহালের ব্যবসায়ী রনি মিয়ার মনোহারি দোকান থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আগুনে পার্শ্ববর্তী ৯টি দোকানে নগদ টাকাসহ মালামাল পুড়ে যায়। পুলিশ ও এলাকাবাসীর ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। খবর পেয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ব্যবসায়ীদের সরকারিভাবে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেন।

কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৩ শতাধিক ঘর ভস্মীভূত

ইটনায় বড়বাজারে আগুন
 উখিয়া ও ইটনা প্রতিনিধি 
১৩ মে ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে তিন শতাধিক রোহিঙ্গার ঘর ও দোকান পুড়ে গেছে। কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে অগ্নিকাণ্ডে কেউ হতাহত হয়নি বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

এদিকে ইটনা উপজেলা সদরের বড় বাজারের মাছ মহালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাত ২ ঘটিকায় মাছ মহালের ব্যবসায়ী রনি মিয়ার মনোহারি দোকান থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আগুনে পার্শ্ববর্তী ৯টি দোকানে নগদ টাকাসহ মালামাল পুড়ে যায়। পুলিশ ও এলাকাবাসীর ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। খবর পেয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ব্যবসায়ীদের সরকারিভাবে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেন।