রায়পুরায় সংঘর্ষ দেখতে গিয়ে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে প্রবাসী নিহত

আরও তিন স্থানে আহত ২৫

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রায়পুরায় সংঘর্ষ দেখতে গিয়ে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে এক প্রবাসী নিহত হয়েছেন। এছাড়া ভোলা, ফুলবাড়ী ও অগৈলঝাড়ায় আহত হয়েছেন ২৫ জন। যুগান্তর প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নরসিংদী : জেলার রায়পুরায় সংঘর্ষ দেখতে গিয়ে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে নুরুল হক নামে এক প্রবাসী নিহত হয়েছেন। নিহত নুরুল হক আবদুল্লাহপুর গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে। উপজেলার চরসুবুদ্ধি ইউনিয়নের আবদুল্লাহপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, আবদুল্লাহপুর গ্রামের ফরহাদ হোসেন স্বপন ও কাঞ্চন মিয়া গ্রুপের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে বুধবার সকালে স্বপন সমর্থিত গ্রুপের লোকজন প্রতিপক্ষ কাঞ্চনের সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে সৃষ্ট সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ১৪টি বাড়িঘরে পাল্টাপাল্টি হামলা, অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাট শুরু হয়। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে চলা সংঘর্ষ দেখতে গেলে একই গ্রামের প্রবাসী নুরুল হক টেঁটাবিদ্ধ হয়ে আহত হন। হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

ভোলা : জেলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের বাঘার হাওলা এলাকায় মঙ্গলবার গাছ থেকে নারিকেল পাড়া নিয়ে দু’দফা হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শিশুসহ দু’জনকে পিটিয়ে হাত ভেঙে দেয়া হয়েছে। এছাড়া আহত হন অন্তত ১০ জন। ভ্যানচালক মোসলে উদ্দিন জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার প্রতিপক্ষ পারভেজ পাটোয়ারী, সিরাজ পাটোয়ারী ও আলমিন গ্রুপের সঙ্গে পৈতৃক ভোগদখলীয় সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) : দু’গ্রুপের সংঘর্ষে বুধবার ১০ জন আহত হয়েছেন। গত এক মাস আগে উপজেলার কুরুষাফেরুষা গ্রামের মৃত সুরেন চন্দ্র রায়ের ছেলে বিপুল চন্দ্র রায়ের সঙ্গে তার ভাতিজা নিখিল চন্দ্র রায়ের জমির সীমানা নিয়ে মারামারি হয়। নিয়ে সালিশকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের বমভোলার ছেলে সুজন চন্দ্র রায়ের সঙ্গে মৃত নাছির উদ্দিনের ছেলে আতাউর রহমান আতার কথাকাটি হয়। এরই জের ধরে বুধবার সংঘর্ষ বাধে।

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) : তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে আগৈলঝাড়ায় হামলা সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়েছেন। জানা গেছে, উপজেলার মাগুরা গ্রামে মনির মোল্লার সঙ্গে জমি নিয়ে হালিম সরদারের বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে বুধবার সকালে মনির মোল্লার সঙ্গে প্রতিপক্ষ হালিম সরদারের বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষে বাধে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত