গাইবান্ধায় প্রতিবাদে মানববন্ধন
jugantor
বিএসসি শিক্ষার্থী হত্যা
গাইবান্ধায় প্রতিবাদে মানববন্ধন

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি  

০৬ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ফ্যাশন টেকনোলজির বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থী সাজেদুর রহমান মমিনুলের হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। গাইবান্ধা-ফুলছড়ি-সাঘাটা সড়কে সাঘাটার ভরতখালী ইউনিয়নের কুকড়াহাট (পোড়াগ্রাম) এলাকায় বুধবার সকালে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সন্তোষ কুমার বর্মণ, নিহতের বাবা আমিনুল ইসলাম, দাদা ফজলুর রহমান মাস্টার, মামা শাহ জালাল, মা শিরিনা বেগম, ভাই সোহেল রানা, ডালেস মিয়া প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ২২ এপ্রিল সাজেদুর রহমান মমিনুলকে নৃশংসভাবে হত্যার চেষ্টা করে ঘাতক চাচা মজিদুল ইসলাম, মফিদুল ইসলাম ও চাচাতো ভাই আবদুল মতিনসহ তাদের লোকজন। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৩০ জুন সাজেদুর রহমান মমিনুল মারা যান। এ ঘটনায় সাঘাটা থানায় মামলা করা হলেও পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করছে না। উল্টো বাদী ও তার পরিবারের লোকজনকে প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে আসছে আসামিরা।

বিএসসি শিক্ষার্থী হত্যা

গাইবান্ধায় প্রতিবাদে মানববন্ধন

 গাইবান্ধা প্রতিনিধি 
০৬ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ফ্যাশন টেকনোলজির বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থী সাজেদুর রহমান মমিনুলের হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। গাইবান্ধা-ফুলছড়ি-সাঘাটা সড়কে সাঘাটার ভরতখালী ইউনিয়নের কুকড়াহাট (পোড়াগ্রাম) এলাকায় বুধবার সকালে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সন্তোষ কুমার বর্মণ, নিহতের বাবা আমিনুল ইসলাম, দাদা ফজলুর রহমান মাস্টার, মামা শাহ জালাল, মা শিরিনা বেগম, ভাই সোহেল রানা, ডালেস মিয়া প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ২২ এপ্রিল সাজেদুর রহমান মমিনুলকে নৃশংসভাবে হত্যার চেষ্টা করে ঘাতক চাচা মজিদুল ইসলাম, মফিদুল ইসলাম ও চাচাতো ভাই আবদুল মতিনসহ তাদের লোকজন। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৩০ জুন সাজেদুর রহমান মমিনুল মারা যান। এ ঘটনায় সাঘাটা থানায় মামলা করা হলেও পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করছে না। উল্টো বাদী ও তার পরিবারের লোকজনকে প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে আসছে আসামিরা।