সাঘাটায় যমুনা নদীর ভাঙনে সহস্রাধিক বসতবাড়ি বিলীন
jugantor
সাঘাটায় যমুনা নদীর ভাঙনে সহস্রাধিক বসতবাড়ি বিলীন

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি  

২৪ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সাঘাটায় যমুনা নদীর ভাঙনে সহস্রাধিক বসতবাড়ি বিলীন

যমুনা নদীর অব্যাহত ভাঙনে সাঘাটা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। গত এক মাসে নদী ভাঙনের কারণে হলদিয়া ইউনিয়নে উত্তর দীঘলকান্দি ও সাঘাটা ইউনিয়নের সাতালিয়া আশ্রয়ণ কেন্দ্র ২টিসহ সহস্রাধিক ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।

গৃহহারা পরিবার বাড়ি-ঘর হারিয়ে অর্থাভাবে চরম দুর্দশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।

যমুনা নদীর প্রবল স্রোতে এক মাস ধরে সাঘাটার বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ভাঙন চলছে। ইতোমধ্যে পাতিলাবাড়ি, গাড়ামারা, সিপি গাড়ামারা, কানাইপাড়া, নলছিয়া, কালুরপাড়া, কুমারপাড়া, দীঘলকান্দি, হাটবাড়ি, মুন্সির হাট, গোবিন্দি, উত্তর সাথালিয়া, দক্ষিণ সাথালিয়া, চিনিরপটলসহ বিভিন্ন পয়েন্টে ব্যাপক ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। এর ফলে হলদিয়া ইউনিয়নের দীঘলকান্দি ও সাঘাটা ইউনিয়নের উত্তর সাথালিয়া গ্রামের ২টি আশ্রয়ণ কেন্দ্রসহ প্রায় এক হাজার পরিবারের বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

হলদিয়া নলছিয়া গ্রামের আফছার আলী জানান, ভাঙনের কারণে আমার বাড়িটি ইতোমধ্যে ৪ বার সরানো হয়েছে। আবারও নদী ভাঙনের শিকার হলাম।

সাঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন সুইট জানান, এবার যমুনা নদী ভাঙনে উত্তর সাথালিয়া আশ্রয়ণ কেন্দ্রসহ বিভিন্ন গ্রামের প্রায় ৪শ’ পরিবারের ঘরবাড়ি বসতভিটা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী প্রধান জানান, বন্যা শুরু হওয়ার পর থেকে এ ইউনিয়নের বিভিন্ন পয়েন্টে ভাঙন শুরু হয়। এখনও সেই ভাঙন অব্যাহত রয়েছে।

সাঘাটায় যমুনা নদীর ভাঙনে সহস্রাধিক বসতবাড়ি বিলীন

 গাইবান্ধা প্রতিনিধি 
২৪ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
সাঘাটায় যমুনা নদীর ভাঙনে সহস্রাধিক বসতবাড়ি বিলীন
ফাইল ছবি

যমুনা নদীর অব্যাহত ভাঙনে সাঘাটা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। গত এক মাসে নদী ভাঙনের কারণে হলদিয়া ইউনিয়নে উত্তর দীঘলকান্দি ও সাঘাটা ইউনিয়নের সাতালিয়া আশ্রয়ণ কেন্দ্র ২টিসহ সহস্রাধিক ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।

গৃহহারা পরিবার বাড়ি-ঘর হারিয়ে অর্থাভাবে চরম দুর্দশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।

যমুনা নদীর প্রবল স্রোতে এক মাস ধরে সাঘাটার বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ভাঙন চলছে। ইতোমধ্যে পাতিলাবাড়ি, গাড়ামারা, সিপি গাড়ামারা, কানাইপাড়া, নলছিয়া, কালুরপাড়া, কুমারপাড়া, দীঘলকান্দি, হাটবাড়ি, মুন্সির হাট, গোবিন্দি, উত্তর সাথালিয়া, দক্ষিণ সাথালিয়া, চিনিরপটলসহ বিভিন্ন পয়েন্টে ব্যাপক ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। এর ফলে হলদিয়া ইউনিয়নের দীঘলকান্দি ও সাঘাটা ইউনিয়নের উত্তর সাথালিয়া গ্রামের ২টি আশ্রয়ণ কেন্দ্রসহ প্রায় এক হাজার পরিবারের বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

হলদিয়া নলছিয়া গ্রামের আফছার আলী জানান, ভাঙনের কারণে আমার বাড়িটি ইতোমধ্যে ৪ বার সরানো হয়েছে। আবারও নদী ভাঙনের শিকার হলাম।

সাঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন সুইট জানান, এবার যমুনা নদী ভাঙনে উত্তর সাথালিয়া আশ্রয়ণ কেন্দ্রসহ বিভিন্ন গ্রামের প্রায় ৪শ’ পরিবারের ঘরবাড়ি বসতভিটা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী প্রধান জানান, বন্যা শুরু হওয়ার পর থেকে এ ইউনিয়নের বিভিন্ন পয়েন্টে ভাঙন শুরু হয়। এখনও সেই ভাঙন অব্যাহত রয়েছে।