কালীগঞ্জে নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই উঠে যাচ্ছে সড়কের পিচ
jugantor
কালীগঞ্জে নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই উঠে যাচ্ছে সড়কের পিচ

  কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কালীগঞ্জে নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই উঠে যাচ্ছে সড়কের পিচ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ-ডাকবাংলা সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার আগেই পিচ উঠে যাচ্ছে। ২২ কিলোমিটার রাস্তার মাত্র তিন কিলোমিটার শেষ হওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে পিচ উঠে যাওয়াসহ ফাটল দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, এ রাস্তা পাকাকরণের কাজ পান খুলনার মুজাহার এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। পরে হাত বদল হয়ে কাজটি করছেন ঝিনাইদহের ঠিকাদার মিজানুর রহমান মাসুম মিয়া। রাস্তাটির ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯ কোটি টাকা।

টেন্ডার শেষে কাজ শুরু হয় তিন বছর আগে। রাস্তা খোঁড়া এবং ইট বালুর কাজ শেষ হয়েছে ছয় মাস আগে। সম্প্রতি শুরু করেছে কার্পেটিংয়ের কাজ।

এরই মধ্যে সড়কের শ্রীরামপুর এলাকার প্রায় এক কিলোমিটার অংশে রাস্তার পিচ ঢালাই উঠে গেছে। কোথাও বড় বড় ফাটলের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটির কাজ দেখভালের দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন জানান, নিুমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কারণে এমনটি হয়েছে।

ঠিকাদার মিজানুর রহমান মাসুম মিয়া বলেন, রাস্তার কাজে নিুমানের সামগ্রী ব্যবহার হচ্ছে না।

তার দাবি, যেখানে রাস্তার পিচ উঠে যাচ্ছে, সেখানে টিউবওয়েলের পানি যায়। যে কারণে এমন হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার রাস্তা পুনরায় করা হবে বলে তিনি জানান।

কালীগঞ্জে নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই উঠে যাচ্ছে সড়কের পিচ

 কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
কালীগঞ্জে নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই উঠে যাচ্ছে সড়কের পিচ
ছবি: যুগান্তর

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ-ডাকবাংলা সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার আগেই পিচ উঠে যাচ্ছে। ২২ কিলোমিটার রাস্তার মাত্র তিন কিলোমিটার শেষ হওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে পিচ উঠে যাওয়াসহ ফাটল দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, এ রাস্তা পাকাকরণের কাজ পান খুলনার মুজাহার এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। পরে হাত বদল হয়ে কাজটি করছেন ঝিনাইদহের ঠিকাদার মিজানুর রহমান মাসুম মিয়া। রাস্তাটির ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯ কোটি টাকা।

টেন্ডার শেষে কাজ শুরু হয় তিন বছর আগে। রাস্তা খোঁড়া এবং ইট বালুর কাজ শেষ হয়েছে ছয় মাস আগে। সম্প্রতি শুরু করেছে কার্পেটিংয়ের কাজ।

এরই মধ্যে সড়কের শ্রীরামপুর এলাকার প্রায় এক কিলোমিটার অংশে রাস্তার পিচ ঢালাই উঠে গেছে। কোথাও বড় বড় ফাটলের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটির কাজ দেখভালের দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন জানান, নিুমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কারণে এমনটি হয়েছে।

ঠিকাদার মিজানুর রহমান মাসুম মিয়া বলেন, রাস্তার কাজে নিুমানের সামগ্রী ব্যবহার হচ্ছে না।

তার দাবি, যেখানে রাস্তার পিচ উঠে যাচ্ছে, সেখানে টিউবওয়েলের পানি যায়। যে কারণে এমন হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার রাস্তা পুনরায় করা হবে বলে তিনি জানান।