মঠবাড়িয়ায় জামিনে এসে বাদীকে হত্যার হুমকি
jugantor
হত্যাচেষ্টা মামলা
মঠবাড়িয়ায় জামিনে এসে বাদীকে হত্যার হুমকি

  মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মঠবাড়িয়ায় রাব্বি নামের শিশুসহ ৩ জনকে হত্যা চেষ্টা মামলায় আসামিরা জামিনে এসে বাদী ও তার পরিবারকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হত্যার হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। অসহায় আহত শিশুর মা আসমা বেগম পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে শনিবার রাতে সাধারণ ডায়রি করেছেন। জানা যায়, উপজেলার ছোট শৌলা গ্রামের দিনমজুর আজমল হোসেন হাওলাদার সঙ্গে একই বাড়ির তোতাম্বরের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জেরে ১৯ অক্টোবর রাতে আজমলের বড় ভাই জালাল হাওলাদার ও তার মা ফাতেমা মঠবাড়িয়া যাওয়ার পথে প্রতিপক্ষ তোতাম্বর, জসিম ও জলিল হাওলাদারের দলবল তাদের ওপর মারধর করতে থাকে। এদের ডাক চিৎকার শুনে আজমল, তার স্ত্রী ফাতেমা ও পুত্র রাব্বি ঘটনা স্থলে ছুটে এলে তাদের ওপরও হামলা চালায়। এতে শিশু রাব্বিসহ ৪ জন গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় আজমলের স্ত্রী আসমা বেগম বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামি করে হত্যা চেষ্টা মামলা করেন। পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামি জসিমকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। মামলার অন্য ৬ আসামি ২১ অক্টোবর জামিনে বেড়িয়ে এসে বাদীসহ পরিবারকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবুল বাসার জানান, বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হত্যাচেষ্টা মামলা

মঠবাড়িয়ায় জামিনে এসে বাদীকে হত্যার হুমকি

 মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মঠবাড়িয়ায় রাব্বি নামের শিশুসহ ৩ জনকে হত্যা চেষ্টা মামলায় আসামিরা জামিনে এসে বাদী ও তার পরিবারকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হত্যার হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। অসহায় আহত শিশুর মা আসমা বেগম পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে শনিবার রাতে সাধারণ ডায়রি করেছেন। জানা যায়, উপজেলার ছোট শৌলা গ্রামের দিনমজুর আজমল হোসেন হাওলাদার সঙ্গে একই বাড়ির তোতাম্বরের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জেরে ১৯ অক্টোবর রাতে আজমলের বড় ভাই জালাল হাওলাদার ও তার মা ফাতেমা মঠবাড়িয়া যাওয়ার পথে প্রতিপক্ষ তোতাম্বর, জসিম ও জলিল হাওলাদারের দলবল তাদের ওপর মারধর করতে থাকে। এদের ডাক চিৎকার শুনে আজমল, তার স্ত্রী ফাতেমা ও পুত্র রাব্বি ঘটনা স্থলে ছুটে এলে তাদের ওপরও হামলা চালায়। এতে শিশু রাব্বিসহ ৪ জন গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় আজমলের স্ত্রী আসমা বেগম বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামি করে হত্যা চেষ্টা মামলা করেন। পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামি জসিমকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। মামলার অন্য ৬ আসামি ২১ অক্টোবর জামিনে বেড়িয়ে এসে বাদীসহ পরিবারকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবুল বাসার জানান, বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।