নাঙ্গলকোটকে দৃষ্টিনন্দন করতে চান মেয়র মালেক
jugantor
নাঙ্গলকোটকে দৃষ্টিনন্দন করতে চান মেয়র মালেক

  নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১০ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট পৌরসভা দৃষ্টিনন্দন পৌর শহরে রূপান্তরিত করতে চান মেয়র মো. আবদুল মালেক। গেল নির্বাচনে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে নিরলসভাবে উন্নয়ন কাজ করে আসছেন তিনি।

নাঙ্গলকোট পৌরসভা ২০০২ সালে যাত্রা শুরু করে। এখানে ৩২ হাজার লোকের বাস। এবার নতুন ভোটার বেড়েছে। মো. আবদুল মালেক ২০১৬ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম মজুমদারকে হারিয়ে নির্বাচিত হন।

বর্তমানে পৌর সভারসভাটি ‘ক’ শ্রেণিতে উন্নীত রয়েছে। পৌরসভায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে উন্নয়ন কাজে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৮৬ কোটি টাকা। পৌর প্রকৌশলী দফতরের তথ্য অনুযায়ী প্রায় ৭৯ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্পন্ন হয়েছে। বাকি ৭ কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

বর্তমানে আরও দুটি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় রয়েছে পৌর এলাকা, তার মধ্যে কুয়েত প্রকল্পে প্রায় ১৪ কোটি এবং জলবায়ু প্রকল্পে বড় ধরনের অর্থ বরাদ্দের সম্ভাবনা রয়েছে।

আর এই প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে দৃষ্টিনন্দন পৌর শহরে রূপান্তরিত হবে বলে মনে করেন মেয়র মালেক।

একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি যুগান্তরকে বলেন, নির্বাচনের সময় যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তার মধ্যে প্রায় সব প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছি। রাস্তাঘাট, ড্রেন, পুল-কালভার্ট নির্মাণ করেছি।

প্রতিটি ওয়ার্ড এবং বাজারের রাস্তা ঢালাই এবং প্রশস্ত করেছি। সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য বাগান তৈরি করেছি। নিরাপদ পানির জন্য আমরা ইতিমধ্যে পাইপ নাইন নির্মাণ করেছি। পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেন নির্মাণ করেছি। জলাবদ্ধতা নিরসন ও মশা নিয়ন্ত্রণে কাজ অব্যাহত রয়েছে।

পৌরসভায় প্রয়োজনীয় ডাস্টবিন, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ, ময়লা-আবর্জনা রাখার জন্য ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছি।

তবে পৌরসভার নিজস্ব জায়গা না থাকায় আমরা আবর্জনা ডাম্পিং নিয়ে একটু অসুবিধায় রয়েছি। সেবা পেতে পৌরবাসীকে কোনো হয়রানির শিকার হতে হয় না। আমাদের অভিভাবক অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামালের সহযোগিতায় ও নির্দেশনায় এ পৌরসভার ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে।

নাঙ্গলকোটকে দৃষ্টিনন্দন করতে চান মেয়র মালেক

 নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১০ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট পৌরসভা দৃষ্টিনন্দন পৌর শহরে রূপান্তরিত করতে চান মেয়র মো. আবদুল মালেক। গেল নির্বাচনে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে নিরলসভাবে উন্নয়ন কাজ করে আসছেন তিনি।

নাঙ্গলকোট পৌরসভা ২০০২ সালে যাত্রা শুরু করে। এখানে ৩২ হাজার লোকের বাস। এবার নতুন ভোটার বেড়েছে। মো. আবদুল মালেক ২০১৬ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম মজুমদারকে হারিয়ে নির্বাচিত হন।

বর্তমানে পৌর সভারসভাটি ‘ক’ শ্রেণিতে উন্নীত রয়েছে। পৌরসভায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে উন্নয়ন কাজে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৮৬ কোটি টাকা। পৌর প্রকৌশলী দফতরের তথ্য অনুযায়ী প্রায় ৭৯ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্পন্ন হয়েছে। বাকি ৭ কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

বর্তমানে আরও দুটি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় রয়েছে পৌর এলাকা, তার মধ্যে কুয়েত প্রকল্পে প্রায় ১৪ কোটি এবং জলবায়ু প্রকল্পে বড় ধরনের অর্থ বরাদ্দের সম্ভাবনা রয়েছে।

আর এই প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে দৃষ্টিনন্দন পৌর শহরে রূপান্তরিত হবে বলে মনে করেন মেয়র মালেক।

একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি যুগান্তরকে বলেন, নির্বাচনের সময় যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তার মধ্যে প্রায় সব প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছি। রাস্তাঘাট, ড্রেন, পুল-কালভার্ট নির্মাণ করেছি।

প্রতিটি ওয়ার্ড এবং বাজারের রাস্তা ঢালাই এবং প্রশস্ত করেছি। সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য বাগান তৈরি করেছি। নিরাপদ পানির জন্য আমরা ইতিমধ্যে পাইপ নাইন নির্মাণ করেছি। পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেন নির্মাণ করেছি। জলাবদ্ধতা নিরসন ও মশা নিয়ন্ত্রণে কাজ অব্যাহত রয়েছে।

পৌরসভায় প্রয়োজনীয় ডাস্টবিন, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ, ময়লা-আবর্জনা রাখার জন্য ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছি।

তবে পৌরসভার নিজস্ব জায়গা না থাকায় আমরা আবর্জনা ডাম্পিং নিয়ে একটু অসুবিধায় রয়েছি। সেবা পেতে পৌরবাসীকে কোনো হয়রানির শিকার হতে হয় না। আমাদের অভিভাবক অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামালের সহযোগিতায় ও নির্দেশনায় এ পৌরসভার ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে।