ধামরাইয়ে যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে নির্যাতন
jugantor
ধামরাইয়ে যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে নির্যাতন

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৮ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ের এক গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন করে শ্বশুরালয় থেকে বিতাড়িত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দাবিকৃত ৩ লাখ টাকা না পেয়ে সুজাতা আক্তার (২৬) নামের ওই গৃহবধূকে শুক্রবার বিকালে তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। হাত-পা বেঁধে ওই গৃহবধূকে ভ্যান-রিকশায় তুলে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দিয়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বরাতনগর গ্রামের আবদুল মালেকের মেয়ে সুজাতা আক্তারের ৯ বছর আগে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া থানার ভাসিয়ালী কৃষ্ণপুর গ্রামের পরান আলী সাধুর ছেলে পোশাক শ্রমিক দুলাল মিয়ার সঙ্গে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে এক কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। এরপরই তাদের দাম্পত্য জীবনে নেমে আসে চরম অশান্তি। মোটা অঙ্কের যৌতুকের দাবিতে। দাম্পত্য জীবনে শান্তি এবং মেয়ের সুখের কথা ভেবে গৃহবধূর মা সেলিনা বেগম মেয়ের জামাতা দুলালকে নগদ ২ লাখ টাকা যৌতুক প্রদান করেন। কিছুদিন তাদের ভালো কাটলেও পরবর্তীতে আবার যৌতুকের দাবিতে স্বামী, ভাসুর-জা ও শ্বশুর-শাশুড়ি মিলে ওই গৃহবধূর ওপর নির্যাতন শুরু করে।

সম্প্রতি আরও তিন লাখ টাকার যৌতুকের দাবিতে শুক্রবার ওই গৃহবধূর ওপর নির্যাতন চালিয়ে হাত-পা বেঁধে ভ্যানগাড়িতে তুলে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেয়। ওই গৃহবধূ সুজাতা আক্তার জানায়, শুক্রবার বাদ জুমা আমার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়। দাবিকৃত যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় আমাকে হাত-পা বেঁধে ভ্যান-রিকশায় তুলে আমার বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। আমি এর ন্যায়বিচার চাই।

ধামরাইয়ে যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে নির্যাতন

 ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৮ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ের এক গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন করে শ্বশুরালয় থেকে বিতাড়িত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দাবিকৃত ৩ লাখ টাকা না পেয়ে সুজাতা আক্তার (২৬) নামের ওই গৃহবধূকে শুক্রবার বিকালে তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। হাত-পা বেঁধে ওই গৃহবধূকে ভ্যান-রিকশায় তুলে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দিয়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বরাতনগর গ্রামের আবদুল মালেকের মেয়ে সুজাতা আক্তারের ৯ বছর আগে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া থানার ভাসিয়ালী কৃষ্ণপুর গ্রামের পরান আলী সাধুর ছেলে পোশাক শ্রমিক দুলাল মিয়ার সঙ্গে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে এক কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। এরপরই তাদের দাম্পত্য জীবনে নেমে আসে চরম অশান্তি। মোটা অঙ্কের যৌতুকের দাবিতে। দাম্পত্য জীবনে শান্তি এবং মেয়ের সুখের কথা ভেবে গৃহবধূর মা সেলিনা বেগম মেয়ের জামাতা দুলালকে নগদ ২ লাখ টাকা যৌতুক প্রদান করেন। কিছুদিন তাদের ভালো কাটলেও পরবর্তীতে আবার যৌতুকের দাবিতে স্বামী, ভাসুর-জা ও শ্বশুর-শাশুড়ি মিলে ওই গৃহবধূর ওপর নির্যাতন শুরু করে।

সম্প্রতি আরও তিন লাখ টাকার যৌতুকের দাবিতে শুক্রবার ওই গৃহবধূর ওপর নির্যাতন চালিয়ে হাত-পা বেঁধে ভ্যানগাড়িতে তুলে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেয়। ওই গৃহবধূ সুজাতা আক্তার জানায়, শুক্রবার বাদ জুমা আমার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়। দাবিকৃত যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় আমাকে হাত-পা বেঁধে ভ্যান-রিকশায় তুলে আমার বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। আমি এর ন্যায়বিচার চাই।