ইবি উপাচার্যকে গণস্বাক্ষর সংবলিত স্মাক্ষরলিপি প্রদান
jugantor
ফি মওকুফসহ তিন দফা দাবি
ইবি উপাচার্যকে গণস্বাক্ষর সংবলিত স্মাক্ষরলিপি প্রদান

  ইবি প্রতিনিধি  

২৬ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আবাসিক হল, পরিবহন ও অন্যান্য ফি মওকুফসহ তিন দফা দাবিতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বরাবরে গণস্বাক্ষর সংবলিত স্মাক্ষরলিপি দেওয়া হয়েছে। ইবি ছাত্র ইউনিয়ন সংসদের পক্ষ থেকে সোমবার দুপুর ১টায় এ স্বাক্ষরলিপি দেয়া হয়। এ সময় ইবি ছাত্র ইউনিয়ন সংসদের সাধারণ সম্পাদক জিকে সাদিক, সাংগাঠনিক সম্পাদক ইমানুল সোহান ও সদস্য সাকিব উপস্থিত ছিলেন। তাদের অন্য দাবিগুলো হলো- স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের আবাসন নিশ্চিত করে পরীক্ষা গ্রহণ এবং বিভিন্ন কাগজপত্র উত্তোলনে প্রশাসনিক জটিলতা নিরসন করা। জানা যায়, শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে তাদের দাবির পক্ষে ১৩ ও ১৫ জানুয়ারি ক্যাম্পাসের ডায়না চত্বর ও ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী মেসগুলোতে গিয়ে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে তারা। এতে পাঁচশত শিক্ষার্থী স্বাক্ষর প্রদান করে দাবির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করেন। এ বিষয়ে ভিসি অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, ‘হল খোলার ব্যাপারে দাবি যৌক্তিক। তবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কিংবা শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে কোনো অনুমুতি না আসায় আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না।’ ফি মওকুফের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এক বছর ক্যাম্পাসে না থেকে তারা হল ও পরিবহন ফি কেন দেবে? এ ব্যাপারে আমিও একমত। তবে আমরা শিক্ষার্থীদের থেকে যে টাকা নেই তা বাজেটে রিফ্লেকটিভ হয়। তখন আয় রেখে বাকি টাকা সরকার দেয়। এটি আমাদের একটি সম্মিলিত সিদ্ধান্ত।’ ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক জিকে সাদিক বলেন, আশা রাখছি দাবিগুলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অতিদ্রুত মেনে নিয়ে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি নিরসন করবে।

ফি মওকুফসহ তিন দফা দাবি

ইবি উপাচার্যকে গণস্বাক্ষর সংবলিত স্মাক্ষরলিপি প্রদান

 ইবি প্রতিনিধি 
২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আবাসিক হল, পরিবহন ও অন্যান্য ফি মওকুফসহ তিন দফা দাবিতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বরাবরে গণস্বাক্ষর সংবলিত স্মাক্ষরলিপি দেওয়া হয়েছে। ইবি ছাত্র ইউনিয়ন সংসদের পক্ষ থেকে সোমবার দুপুর ১টায় এ স্বাক্ষরলিপি দেয়া হয়। এ সময় ইবি ছাত্র ইউনিয়ন সংসদের সাধারণ সম্পাদক জিকে সাদিক, সাংগাঠনিক সম্পাদক ইমানুল সোহান ও সদস্য সাকিব উপস্থিত ছিলেন। তাদের অন্য দাবিগুলো হলো- স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের আবাসন নিশ্চিত করে পরীক্ষা গ্রহণ এবং বিভিন্ন কাগজপত্র উত্তোলনে প্রশাসনিক জটিলতা নিরসন করা। জানা যায়, শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে তাদের দাবির পক্ষে ১৩ ও ১৫ জানুয়ারি ক্যাম্পাসের ডায়না চত্বর ও ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী মেসগুলোতে গিয়ে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে তারা। এতে পাঁচশত শিক্ষার্থী স্বাক্ষর প্রদান করে দাবির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করেন। এ বিষয়ে ভিসি অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, ‘হল খোলার ব্যাপারে দাবি যৌক্তিক। তবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কিংবা শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে কোনো অনুমুতি না আসায় আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না।’ ফি মওকুফের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এক বছর ক্যাম্পাসে না থেকে তারা হল ও পরিবহন ফি কেন দেবে? এ ব্যাপারে আমিও একমত। তবে আমরা শিক্ষার্থীদের থেকে যে টাকা নেই তা বাজেটে রিফ্লেকটিভ হয়। তখন আয় রেখে বাকি টাকা সরকার দেয়। এটি আমাদের একটি সম্মিলিত সিদ্ধান্ত।’ ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক জিকে সাদিক বলেন, আশা রাখছি দাবিগুলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অতিদ্রুত মেনে নিয়ে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি নিরসন করবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন