তিন ঘাট বিকল : দৌলতদিয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত র‌্যামে দুর্ঘটনার শঙ্কা
jugantor
তিন ঘাট বিকল : দৌলতদিয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত র‌্যামে দুর্ঘটনার শঙ্কা

  শামীম শেখ, গোয়ালন্দ  

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের গুরুত্বপূর্ণ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া প্রান্তে ফেরিঘাটের সংখ্যা ৬টি কিন্তু নাব্য সংকট ও অধিক উচ্চতার কারণে ৩টি ঘাট বন্ধ রয়েছে দীর্ঘদিন। চালু রয়েছে ৩, ৪ ও ৫নং ঘাট। এর মধ্যে ৫নং ফেরিঘাটের র‌্যাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ায় ঘাটটি দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। এতে করে যে কোনো সময় দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন চালক ও সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিন দেখা যায়, দৌলতদিয়ার প্রান্তে ৬টি ঘাটের মধ্যে ১, ২ ও ৬নং ঘাট ৩টি নাব্য সংকট ও অধিক উচ্চতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় প্রতিটি ঘাট সংযোগ সড়ক থেকে অস্বাভাবিক নিচে চলে গেছে। ফলে ওই সড়ক দিয়ে যানবাহনগুলোকে ফেরিতে ওঠা-নামা করতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। এদিকে সচল ঘাটগুলোর মধ্যে ৫নং ফেরিঘাটটি অবস্থানগত কারণে ব্যবহারের সুবিধা বেশি। তাই সেখানে চাপও বেশি। কিন্তু ঘাটের পন্টুন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কারণে চালকরা যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন। বেশ কয়েকদিন ধরে র‌্যাম ক্ষতিগ্রস্ত হলেও কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি কর্তৃপক্ষ। ট্রাকচালক আ. সাত্তার শেখ, কালাম শেখ, মোসলেম উদ্দিন, আ. গফুরসহ কয়েকজন বলেন, দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের পন্টুন থেকে সড়ক বেশ উঁচুতে। পন্টুন থেকে পণ্যবোঝাই ট্রাক সড়কে উঠাতে কষ্ট হয়। পন্টুন থেকে উচ্চতার কারণে অনেক সময় ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। যে কারণে ঘাট বন্ধ থাকে। র‌্যাকারের সাহায্য নিয়ে ট্রাক টেনে তুলতে হয়। আমাদের অতিরিক্ত ভাড়া গুণতে হয়। এর ওপর কয়েকদিন হল ৫নং ঘাটের র‌্যাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এখানে বেশ কয়েকটি সরকারি দপ্তর কাজ করে। বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক আবু আবদুল্লাহ রনি জানান, দৌলতদিয়ায় এমনিতেই ঘাট কমে গেছে। এ অবস্থায় যানবাহনের বাড়তি চাপের কারণে কোনো ঘাট বন্ধ রাখা খুবই কষ্টকর। এ বিষয়ে মানিকগঞ্জের আরিচা কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক আবদুস সাত্তার বলেন, আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে শনিবার হতে ফেরি চলাচল শুরু হবে। সে কারণে আমরা একটু ব্যস্ত রয়েছি। তাছাড়া নানা কারণে যানবাহনের চাপ রয়েছে। যে কারণে ঘাট বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। দুইদিন বন্ধ রেখে র‌্যাম সংস্কার করতে হবে। আশা করছি কয়েকদিনের মধ্যে র‌্যাম সংস্কার করা হবে।

তিন ঘাট বিকল : দৌলতদিয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত র‌্যামে দুর্ঘটনার শঙ্কা

 শামীম শেখ, গোয়ালন্দ 
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের গুরুত্বপূর্ণ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া প্রান্তে ফেরিঘাটের সংখ্যা ৬টি কিন্তু নাব্য সংকট ও অধিক উচ্চতার কারণে ৩টি ঘাট বন্ধ রয়েছে দীর্ঘদিন। চালু রয়েছে ৩, ৪ ও ৫নং ঘাট। এর মধ্যে ৫নং ফেরিঘাটের র‌্যাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ায় ঘাটটি দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। এতে করে যে কোনো সময় দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন চালক ও সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিন দেখা যায়, দৌলতদিয়ার প্রান্তে ৬টি ঘাটের মধ্যে ১, ২ ও ৬নং ঘাট ৩টি নাব্য সংকট ও অধিক উচ্চতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় প্রতিটি ঘাট সংযোগ সড়ক থেকে অস্বাভাবিক নিচে চলে গেছে। ফলে ওই সড়ক দিয়ে যানবাহনগুলোকে ফেরিতে ওঠা-নামা করতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। এদিকে সচল ঘাটগুলোর মধ্যে ৫নং ফেরিঘাটটি অবস্থানগত কারণে ব্যবহারের সুবিধা বেশি। তাই সেখানে চাপও বেশি। কিন্তু ঘাটের পন্টুন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কারণে চালকরা যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন। বেশ কয়েকদিন ধরে র‌্যাম ক্ষতিগ্রস্ত হলেও কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি কর্তৃপক্ষ। ট্রাকচালক আ. সাত্তার শেখ, কালাম শেখ, মোসলেম উদ্দিন, আ. গফুরসহ কয়েকজন বলেন, দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের পন্টুন থেকে সড়ক বেশ উঁচুতে। পন্টুন থেকে পণ্যবোঝাই ট্রাক সড়কে উঠাতে কষ্ট হয়। পন্টুন থেকে উচ্চতার কারণে অনেক সময় ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। যে কারণে ঘাট বন্ধ থাকে। র‌্যাকারের সাহায্য নিয়ে ট্রাক টেনে তুলতে হয়। আমাদের অতিরিক্ত ভাড়া গুণতে হয়। এর ওপর কয়েকদিন হল ৫নং ঘাটের র‌্যাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এখানে বেশ কয়েকটি সরকারি দপ্তর কাজ করে। বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক আবু আবদুল্লাহ রনি জানান, দৌলতদিয়ায় এমনিতেই ঘাট কমে গেছে। এ অবস্থায় যানবাহনের বাড়তি চাপের কারণে কোনো ঘাট বন্ধ রাখা খুবই কষ্টকর। এ বিষয়ে মানিকগঞ্জের আরিচা কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক আবদুস সাত্তার বলেন, আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে শনিবার হতে ফেরি চলাচল শুরু হবে। সে কারণে আমরা একটু ব্যস্ত রয়েছি। তাছাড়া নানা কারণে যানবাহনের চাপ রয়েছে। যে কারণে ঘাট বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। দুইদিন বন্ধ রেখে র‌্যাম সংস্কার করতে হবে। আশা করছি কয়েকদিনের মধ্যে র‌্যাম সংস্কার করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন