তিন হাজার টাকায় ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ
jugantor
আমতলীতে বিধবাকে ধর্ষণচেষ্টা!
তিন হাজার টাকায় ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ

  আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  

২১ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এক বিধবাকে কাঠ ব্যবসায়ী জাকির হোসেন ধর্ষণচেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা ধামাচাপা দিতে পুলিশ সদস্য সোহরাফ হোসেন ওই বিধবার হাতে তিন হাজার টাকা তুলে দিয়ে থানায় যেতে নিষেধ করেন। এমন অভিযোগ ওই বিধবার। ঘটনাটি ঘটেছে আমতলী উপজেলার উত্তর টিয়াখালী গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে।

জানা গেছে, উত্তর টিয়াখালী গ্রামের এক বিধবা দুই মেয়ে নিয়ে ১৫ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। আমতলী-কুয়াকাটা আঞ্চলিক সড়কে সবুজ বেষ্টনীর গাছ কাটতে আসা ঠিকাদার প্রিন্স তালুকদার রিপনের মামাতো ভাই জাকির হোসেন প্রায়ই ওই বিধবাকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়। কিন্তু জাকিরের প্রস্তাবে বিধবা রাজি হননি। জাকির মঙ্গলবার দুপুরে ওই বাড়িতে প্রবেশ করে বিধবাকে একা পেয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালায়। এ সময় বিধবার ডাকচিৎকারে তার বোন ছুটে এলে জাকির পালিয়ে যায়। আমতলী থানার উপপরিদর্শক মো. শহীদুল আলমের নেতৃত্বে তিন পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে যান। তারা গিয়ে ওই বিধবাকে বিচার না করে উলটো তিরস্কার করেন। পরে পুলিশ সদস্য সোহরাফ হোসেন বিধবার হাতে তিন হাজার টাকা তুলে দিয়ে ঘটনা কাউকে না জানাতে শাসিয়ে দেন। ওই দিন বিকালে বিধবা আমতলী থানায় ব্যবসায়ী জাকির হোসেন, তার সহযোগী প্রিন্স তালুকদার রিপন ও আহসানের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ এনে অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ঘটনায় ব্যবসায়ী জাকির হোসেনের মামাতো ভাই ঠিকাদার প্রিন্স তালুকদার রিপন বলেন, এ ঘটনা আমার জানা নেই। আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ নিয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমতলীতে বিধবাকে ধর্ষণচেষ্টা!

তিন হাজার টাকায় ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ

 আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি 
২১ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এক বিধবাকে কাঠ ব্যবসায়ী জাকির হোসেন ধর্ষণচেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা ধামাচাপা দিতে পুলিশ সদস্য সোহরাফ হোসেন ওই বিধবার হাতে তিন হাজার টাকা তুলে দিয়ে থানায় যেতে নিষেধ করেন। এমন অভিযোগ ওই বিধবার। ঘটনাটি ঘটেছে আমতলী উপজেলার উত্তর টিয়াখালী গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে।

জানা গেছে, উত্তর টিয়াখালী গ্রামের এক বিধবা দুই মেয়ে নিয়ে ১৫ বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। আমতলী-কুয়াকাটা আঞ্চলিক সড়কে সবুজ বেষ্টনীর গাছ কাটতে আসা ঠিকাদার প্রিন্স তালুকদার রিপনের মামাতো ভাই জাকির হোসেন প্রায়ই ওই বিধবাকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়। কিন্তু জাকিরের প্রস্তাবে বিধবা রাজি হননি। জাকির মঙ্গলবার দুপুরে ওই বাড়িতে প্রবেশ করে বিধবাকে একা পেয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালায়। এ সময় বিধবার ডাকচিৎকারে তার বোন ছুটে এলে জাকির পালিয়ে যায়। আমতলী থানার উপপরিদর্শক মো. শহীদুল আলমের নেতৃত্বে তিন পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে যান। তারা গিয়ে ওই বিধবাকে বিচার না করে উলটো তিরস্কার করেন। পরে পুলিশ সদস্য সোহরাফ হোসেন বিধবার হাতে তিন হাজার টাকা তুলে দিয়ে ঘটনা কাউকে না জানাতে শাসিয়ে দেন। ওই দিন বিকালে বিধবা আমতলী থানায় ব্যবসায়ী জাকির হোসেন, তার সহযোগী প্রিন্স তালুকদার রিপন ও আহসানের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ এনে অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ঘটনায় ব্যবসায়ী জাকির হোসেনের মামাতো ভাই ঠিকাদার প্রিন্স তালুকদার রিপন বলেন, এ ঘটনা আমার জানা নেই। আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ নিয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন