মঠবাড়িয়ায় যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা
jugantor
আধিপত্য বিস্তারের জের
মঠবাড়িয়ায় যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

  মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি  

২১ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মঠবাড়িয়ার দক্ষিণ সোনাখালী গ্রামে জমি ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রফিকুল ইসলাম তালুকদার নামে যুবলীগ নেতাকে সোমবার ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর অভিযোগ উঠেছে। তিনি স্থানীয় ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ও মৎস্য চাষি। পরে স্বজনরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ওই রাতেই বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় রফিকুলের বড় ভাই শহীদ তালুকদার মঙ্গলবার ৮ জন এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত ৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা করেন। জানা যায়, রফিক তালুকদারের সঙ্গে একই এলাকার আনসার তালুকদারের ছেলে রাসেল, নেছার তালুকদারের ছেলে সুমন ও লোকমান তালুকদারের ছেলে রনির দীর্ঘ দিন ধরে জমি ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই দিন ইফতারের আগে রফিক বাড়ি ফেরার পথে ওতপেতে থাকা রাসেল, রনি, সুমন রায়হান ও রাজিবসহ ১০-১২ জনের একটি দল ধাড়ালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে মৃত ভেবে চলে যায়। গুলিশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলম ঝনো বলেন, যুবলীগ নেতা রফিকুলের ওপর হামলাকারীরা এলাকার সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা ও মাদকের মামলা রয়েছে। মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মসিদ্দুজ্জামান মিলু মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আধিপত্য বিস্তারের জের

মঠবাড়িয়ায় যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

 মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি 
২১ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মঠবাড়িয়ার দক্ষিণ সোনাখালী গ্রামে জমি ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রফিকুল ইসলাম তালুকদার নামে যুবলীগ নেতাকে সোমবার ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর অভিযোগ উঠেছে। তিনি স্থানীয় ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ও মৎস্য চাষি। পরে স্বজনরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ওই রাতেই বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় রফিকুলের বড় ভাই শহীদ তালুকদার মঙ্গলবার ৮ জন এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত ৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা করেন। জানা যায়, রফিক তালুকদারের সঙ্গে একই এলাকার আনসার তালুকদারের ছেলে রাসেল, নেছার তালুকদারের ছেলে সুমন ও লোকমান তালুকদারের ছেলে রনির দীর্ঘ দিন ধরে জমি ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই দিন ইফতারের আগে রফিক বাড়ি ফেরার পথে ওতপেতে থাকা রাসেল, রনি, সুমন রায়হান ও রাজিবসহ ১০-১২ জনের একটি দল ধাড়ালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে মৃত ভেবে চলে যায়। গুলিশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলম ঝনো বলেন, যুবলীগ নেতা রফিকুলের ওপর হামলাকারীরা এলাকার সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা ও মাদকের মামলা রয়েছে। মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মসিদ্দুজ্জামান মিলু মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন