কোম্পানীগঞ্জে ইউপি সদস্যকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ
jugantor
তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা
কোম্পানীগঞ্জে ইউপি সদস্যকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৫ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কোম্পানীগঞ্জে মধ্যরাতে তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে হেলাল হোসেন নামে এক ইউপি সদস্যকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী। এ ঘটনায় ভিকটিম তরুণীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

চরএলাহী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত হেলাল হোসেন ৪নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য এবং একই এলাকার মৃত নূরুল হকের ছেলে।

চরএলাহী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে ইউপি সদস্য হেলাল হোসেন ওই তরুণীকে টেলিফোনে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন।

সোমবার রাতে কথা আছে বলে ইউপি সদস্য ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয়রা তাকে হাতেনাতে আটক করে। পরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

ভুক্তভোগী তরুণী জানান, তার মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে ইউপি সদস্য হেলাল গত কয়েক মাস ধরে নানা কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা বলে আসছিলেন। সোমবার রাতে তাকে ফোন দিয়ে কথা আছে বলে ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

তার কাছে বিভিন্ন সময়ের বেশ কিছু কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তার কল রেকর্ড রয়েছে বলে জানান। ওসি মীর জাহেদুল হক রনি জানান, ইউপি সদস্য হেলালকে নোয়াখালী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা

কোম্পানীগঞ্জে ইউপি সদস্যকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৫ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কোম্পানীগঞ্জে মধ্যরাতে তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে হেলাল হোসেন নামে এক ইউপি সদস্যকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী। এ ঘটনায় ভিকটিম তরুণীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

চরএলাহী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত হেলাল হোসেন ৪নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য এবং একই এলাকার মৃত নূরুল হকের ছেলে।

চরএলাহী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে ইউপি সদস্য হেলাল হোসেন ওই তরুণীকে টেলিফোনে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন।

সোমবার রাতে কথা আছে বলে ইউপি সদস্য ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয়রা তাকে হাতেনাতে আটক করে। পরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

ভুক্তভোগী তরুণী জানান, তার মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে ইউপি সদস্য হেলাল গত কয়েক মাস ধরে নানা কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা বলে আসছিলেন। সোমবার রাতে তাকে ফোন দিয়ে কথা আছে বলে ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

তার কাছে বিভিন্ন সময়ের বেশ কিছু কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তার কল রেকর্ড রয়েছে বলে জানান। ওসি মীর জাহেদুল হক রনি জানান, ইউপি সদস্য হেলালকে নোয়াখালী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন