নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ
jugantor
কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

  নেত্রকোনা প্রতিনিধি  

১২ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে রহিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে। তিনি ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ক্যাশিয়ার। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে মঙ্গলবার ওই নারী লিখিত অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগে জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরে রহিম উদ্দিন আহমেদ তার সঙ্গে অশালীন কথাবার্তা ও আচরণ করে আসছিলেন। বার বার সতর্ক করার পরেও রহিম তা বন্ধ করেননি। গত ২৯ এপ্রিল একটি প্রশিক্ষণের টাকা চাইতে গেলে রহিম ‘কুরুচিপূর্ণ’ কথা বলেন এবং ‘বাজে’ আচরণ করার চেষ্টা করেন। গত ৬ মে প্রশিক্ষণের কাগজপত্র নিয়ে তার কাছে গেলে ফের একই আচরণ করেন। ওইদিন ‘কুইঙ্গিত’ প্রদর্শনের পাশাপাশি ভয়ভীতিও দেখান বলে লিখিত অভিযোগে বলা হয়। এ অবস্থায় তিনি ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে আছেন। অভিযোগ বিষয়ে রহিম উদ্দিন আহমেদের মোবাইলে কয়েকবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি। একপর্যায়ে তা বন্ধ পাওয়া যায়। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. এবাদুর রহমান বলেন, অভিযোগটি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছি।

জেলা সিভিল সার্জন মো. সেলিম মিয়া বলেন, অভিযোগটি পেয়েছি। তদন্ত কমিটি গঠন করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

 নেত্রকোনা প্রতিনিধি 
১২ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে রহিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে। তিনি ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ক্যাশিয়ার। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে মঙ্গলবার ওই নারী লিখিত অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগে জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরে রহিম উদ্দিন আহমেদ তার সঙ্গে অশালীন কথাবার্তা ও আচরণ করে আসছিলেন। বার বার সতর্ক করার পরেও রহিম তা বন্ধ করেননি। গত ২৯ এপ্রিল একটি প্রশিক্ষণের টাকা চাইতে গেলে রহিম ‘কুরুচিপূর্ণ’ কথা বলেন এবং ‘বাজে’ আচরণ করার চেষ্টা করেন। গত ৬ মে প্রশিক্ষণের কাগজপত্র নিয়ে তার কাছে গেলে ফের একই আচরণ করেন। ওইদিন ‘কুইঙ্গিত’ প্রদর্শনের পাশাপাশি ভয়ভীতিও দেখান বলে লিখিত অভিযোগে বলা হয়। এ অবস্থায় তিনি ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে আছেন। অভিযোগ বিষয়ে রহিম উদ্দিন আহমেদের মোবাইলে কয়েকবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি। একপর্যায়ে তা বন্ধ পাওয়া যায়। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. এবাদুর রহমান বলেন, অভিযোগটি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছি।

জেলা সিভিল সার্জন মো. সেলিম মিয়া বলেন, অভিযোগটি পেয়েছি। তদন্ত কমিটি গঠন করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন