ধামরাইয়ে ফোনে শ্বশুরকে হুমকি, ৩ ঘণ্টা পরই স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ
jugantor
ধামরাইয়ে ফোনে শ্বশুরকে হুমকি, ৩ ঘণ্টা পরই স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

  শামীম খান, ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি  

১৮ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে মুঠোফোনে হুমকি দিয়েই তিন ঘণ্টার মধ্যে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে জামাতার বিরুদ্ধে। ঘরে লাশ রেখে ওই স্বামীসহ বাড়ির সবাই পালিয়ে গেছে বাড়ি ছেড়ে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। এব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশি সূত্র। ভুক্তভোগী পরিবার জানান, ১১ বছর পূর্বে ধামরাই উপজেলার বরাটিয়া গ্রামের মো. চাঁনমিয়ার মেয়ে রোকসানা আক্তারের (৩২) সঙ্গে সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার চাকলগ্রাম মধ্যপাড়া গ্রামের মো. ইয়ার হোসেনের বিয়ে হয়। তাদের ৮ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। ইয়ার হোসেনের দুই বোন স্বামী সন্তান নিয়ে ওই বাড়ীতেই স্থায়ী বসবাসের ফলে তাদের সংসারে সর্বদা ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। মাঝে মধ্যেই পরিবারের সবাই মিলে অমানুষিক জুলুম নির্যাতন চালাতো ওই গৃহবধূর ওপর।

রোববার সকালে ফের ঝগড়া বিবাদ শুরু হয়। সোমবার ১২টার দিকে স্বামী ইয়ার হোসেন মুঠোফোন দিয়ে তার শ্বশুর চাঁনমিয়াকে হুমকি দিয়ে জানায়, আপনার মেয়েকে একেবারে বিদায় করে দেব। তাড়াতাড়ি নিয়ে যান। না হলে মেয়ে নয় মেয়ের লাশ উপহার দেব আপনাকে। শ্বশুরের আসতে বিলম্ব হলে স্বামীসহ পরিবারের অপরাপর সদস্যরা মিলে ওই গৃহবধূর ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালায়।

ধামরাইয়ে ফোনে শ্বশুরকে হুমকি, ৩ ঘণ্টা পরই স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

 শামীম খান, ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি 
১৮ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে মুঠোফোনে হুমকি দিয়েই তিন ঘণ্টার মধ্যে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে জামাতার বিরুদ্ধে। ঘরে লাশ রেখে ওই স্বামীসহ বাড়ির সবাই পালিয়ে গেছে বাড়ি ছেড়ে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। এব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশি সূত্র। ভুক্তভোগী পরিবার জানান, ১১ বছর পূর্বে ধামরাই উপজেলার বরাটিয়া গ্রামের মো. চাঁনমিয়ার মেয়ে রোকসানা আক্তারের (৩২) সঙ্গে সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার চাকলগ্রাম মধ্যপাড়া গ্রামের মো. ইয়ার হোসেনের বিয়ে হয়। তাদের ৮ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। ইয়ার হোসেনের দুই বোন স্বামী সন্তান নিয়ে ওই বাড়ীতেই স্থায়ী বসবাসের ফলে তাদের সংসারে সর্বদা ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। মাঝে মধ্যেই পরিবারের সবাই মিলে অমানুষিক জুলুম নির্যাতন চালাতো ওই গৃহবধূর ওপর।

রোববার সকালে ফের ঝগড়া বিবাদ শুরু হয়। সোমবার ১২টার দিকে স্বামী ইয়ার হোসেন মুঠোফোন দিয়ে তার শ্বশুর চাঁনমিয়াকে হুমকি দিয়ে জানায়, আপনার মেয়েকে একেবারে বিদায় করে দেব। তাড়াতাড়ি নিয়ে যান। না হলে মেয়ে নয় মেয়ের লাশ উপহার দেব আপনাকে। শ্বশুরের আসতে বিলম্ব হলে স্বামীসহ পরিবারের অপরাপর সদস্যরা মিলে ওই গৃহবধূর ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালায়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন