গুদামে পড়ে আছে এক্স-রে মেশিন
jugantor
গুদামে পড়ে আছে এক্স-রে মেশিন
টেকনিশিয়ানের অভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা বন্ধ

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৪ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসক ও টেকনিশিয়ানের অভাবে সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এছাড়াও অযত্ন আর অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে এসব হাসপাতালের এক্স-রে মেশিনসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জামাধি। যুগান্তর প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারীর গোলাম মাহবুব, লালমনিরহাটের মো. মিজানুর রহমান দুলাল ও দিনাজপুর জেলার বিরামপুরের মশিহুর রহমানের পাঠানো খবর-

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) : চিলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টেকনিশিয়ান না থাকা এবং যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বছরের পর বছর অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে আছে এক্স-রে মেশিনসহ অপারেশন থিয়েটারের বিভিন্ন মূল্যবান যন্ত্রপাতি। তালাবদ্ধ কক্ষে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে কোটি টাকা মূল্যের এক্স-রে মেশিনটি। বর্তমানে কক্ষটিকে গুদামরুম হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। অপরদিকে দুটি অপারেশন থিয়েটারে কিছু যন্ত্রপাতি থাকলেও সার্জারি ও অ্যানেসথেশিয়া বিশেষজ্ঞের অভাবে তা ব্যবহার করা হয় না।

লালমনিরহাট : লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সিরাজুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে জনবল সংকটের পাশাপাশি ডিজিটাল এক্স-রে মেশিনও নষ্ট। সে সঙ্গে নষ্ট হয়ে পড়ে আছে আল্ট্রাসনোগ্রাম মেশিনও। এদিকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিনটি প্রায় ১৫ বছর নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। হাসপাতালটিতে জনবল সংকটে অপারেশন থিয়েটার অকেজো।

বিরামপুর (দিনাজপুর) : বিরামপুর উপজেলা হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্স, এক্স-রে মেশিন, আল্ট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি, জীবাণুনাশক ট্যানেল ও সব ধরনের অপারেশন বন্ধ রয়েছে। এছাড়া সংশ্লিষ্ট পদে জনবল না থাকায় আল্ট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি বন্ধ রয়েছে এবং অ্যানেসথেশিয়া ও সার্জন বিশেষজ্ঞ না থাকায় অপারেশন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

গুদামে পড়ে আছে এক্স-রে মেশিন

টেকনিশিয়ানের অভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা বন্ধ
 যুগান্তর ডেস্ক 
০৪ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসক ও টেকনিশিয়ানের অভাবে সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এছাড়াও অযত্ন আর অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে এসব হাসপাতালের এক্স-রে মেশিনসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জামাধি। যুগান্তর প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারীর গোলাম মাহবুব, লালমনিরহাটের মো. মিজানুর রহমান দুলাল ও দিনাজপুর জেলার বিরামপুরের মশিহুর রহমানের পাঠানো খবর-

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) : চিলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টেকনিশিয়ান না থাকা এবং যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বছরের পর বছর অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে আছে এক্স-রে মেশিনসহ অপারেশন থিয়েটারের বিভিন্ন মূল্যবান যন্ত্রপাতি। তালাবদ্ধ কক্ষে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে কোটি টাকা মূল্যের এক্স-রে মেশিনটি। বর্তমানে কক্ষটিকে গুদামরুম হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। অপরদিকে দুটি অপারেশন থিয়েটারে কিছু যন্ত্রপাতি থাকলেও সার্জারি ও অ্যানেসথেশিয়া বিশেষজ্ঞের অভাবে তা ব্যবহার করা হয় না।

লালমনিরহাট : লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সিরাজুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে জনবল সংকটের পাশাপাশি ডিজিটাল এক্স-রে মেশিনও নষ্ট। সে সঙ্গে নষ্ট হয়ে পড়ে আছে আল্ট্রাসনোগ্রাম মেশিনও। এদিকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিনটি প্রায় ১৫ বছর নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। হাসপাতালটিতে জনবল সংকটে অপারেশন থিয়েটার অকেজো।

বিরামপুর (দিনাজপুর) : বিরামপুর উপজেলা হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্স, এক্স-রে মেশিন, আল্ট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি, জীবাণুনাশক ট্যানেল ও সব ধরনের অপারেশন বন্ধ রয়েছে। এছাড়া সংশ্লিষ্ট পদে জনবল না থাকায় আল্ট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি বন্ধ রয়েছে এবং অ্যানেসথেশিয়া ও সার্জন বিশেষজ্ঞ না থাকায় অপারেশন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বেহাল স্বাস্থ্যসেবা