কোটি টাকার স্বাস্থ্য পরীক্ষার যন্ত্রপাতি ঘরবন্দি
jugantor
মানিকগঞ্জ হাসপাতাল
কোটি টাকার স্বাস্থ্য পরীক্ষার যন্ত্রপাতি ঘরবন্দি

  মতিউর রহমান, মানিকগঞ্জ  

০৭ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মানিকগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে কোটি টাকার স্বাস্থ্য পরীক্ষার নতুন সব আধুনিক যন্ত্রপাতি দীর্ঘদিন ধরে অযত্ন-অবহেলায় ঘরবন্দি হয়ে পড়ে রয়েছে। জনবল সংকটসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত হাসপাতালে উন্নতমানের সিটিস্ক্যান, এমআরআইসহ কোটি কোটি টাকার বিভিন্ন যন্ত্রপাতি থাকলেও কোনো কাজে আসছে না। প্রয়োজনীয় সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে রোগীরা। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি থাকলেও শুধু লোকবলের অভাবে কোনো কাজেই আসছে না এসব দামি যন্ত্রপাতি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে সিটিস্ক্যান, এমআরআই মেশিনসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম থাকার পরেও কোনো কাজে আসছে না। বাধ্য হয়ে অধিক টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন ক্লিনিকে যেতে বাধ্য হচ্ছে রোগীরা।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আরশ্বাদ উল্লাহ জানান, সিটিস্ক্যান, এমআরআই মেশিনসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি আছে ঠিকই কিন্তু এগুলো চালানোর মতো জনবল নেই। লোকের ব্যবস্থা হয়ে গেলে এগুলো ব্যবহার করা যাবে।

তিনি আরও জানালেন, ঠিকাদারের পক্ষ থেকে এখনো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি। প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ দিলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে তিনি জানান।

মানিকগঞ্জ হাসপাতাল

কোটি টাকার স্বাস্থ্য পরীক্ষার যন্ত্রপাতি ঘরবন্দি

 মতিউর রহমান, মানিকগঞ্জ 
০৭ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মানিকগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে কোটি টাকার স্বাস্থ্য পরীক্ষার নতুন সব আধুনিক যন্ত্রপাতি দীর্ঘদিন ধরে অযত্ন-অবহেলায় ঘরবন্দি হয়ে পড়ে রয়েছে। জনবল সংকটসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত হাসপাতালে উন্নতমানের সিটিস্ক্যান, এমআরআইসহ কোটি কোটি টাকার বিভিন্ন যন্ত্রপাতি থাকলেও কোনো কাজে আসছে না। প্রয়োজনীয় সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে রোগীরা। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি থাকলেও শুধু লোকবলের অভাবে কোনো কাজেই আসছে না এসব দামি যন্ত্রপাতি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে সিটিস্ক্যান, এমআরআই মেশিনসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম থাকার পরেও কোনো কাজে আসছে না। বাধ্য হয়ে অধিক টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন ক্লিনিকে যেতে বাধ্য হচ্ছে রোগীরা।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আরশ্বাদ উল্লাহ জানান, সিটিস্ক্যান, এমআরআই মেশিনসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি আছে ঠিকই কিন্তু এগুলো চালানোর মতো জনবল নেই। লোকের ব্যবস্থা হয়ে গেলে এগুলো ব্যবহার করা যাবে।

তিনি আরও জানালেন, ঠিকাদারের পক্ষ থেকে এখনো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি। প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ দিলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে তিনি জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বেহাল স্বাস্থ্যসেবা