মহেশখালীতে এসআইয়ের কাণ্ড

আপসের নামে হত্যা মামলার বাদীর স্বাক্ষর আদায়

  কক্সবাজার প্রতিনিধি ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মহেশখালীর কুলছুমা হত্যা মামলায় পাঁচ মাসেও আটক হয়নি এজাহারভুক্ত ৯ আসামি। বীরদর্পে থানা কম্পাউন্ডসহ বাজার ও ঘরবাড়িতে ঘুরে বেড়ালেও হত্যাকারীদের ধরছে না মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা। উল্টো বাদীকে থানায় নিয়ে মামলা আপসের জন্য আসামির সামনে খালি স্ট্যাম্পে জোরপূর্বক স্বাক্ষর আদায় করেছেন বলে জানান মামলার বাদী মোস্তাক আহমদ। মামলার বাদী বলেন, ২৫ এপ্রিল আমার ভাই নুরুল আমিনকে তদন্তকারী কর্মকর্তা মহেশখালী থানার এসআই ইমাম হোসেন ফোন করে আমাকে ২৬ এপ্রিল রাতে থানায় হাজির হতে বলেন। হাজির না হলে খুব অসুবিধা হবে বলেও জানান। দারোগার হুমকি ও নানা ভয়ভীতিতে রাত ১০টার দিকে থানার দ্বিতীয় তলায় যাই। এ সময় দারোগার সামনে চেয়ারে বসে আড্ডা দিচ্ছিল মামলার ৬নং আসামি আবদুল মালেক। তাকে দেখে চলে আসতে চাইলে আমাকে ধমকি দিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখে। পরে এক লাখ টাকার বিনিময়ে মামলা আপস করতে বলেন। ওই সময় আমি রাজি না হলে টেবিলের ড্রয়ার থেকে একটি কার্টিস পেপার বের করে জোরপূর্বক আমার টিপসহি আদায় করেন দারোগা। বাদীর বক্তব্যের অনেকটা স্বীকার করে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ইমাম হোসেন বলেন, বাদীকে থানায় ডেকে নিয়ে আসার বিষয়টি সত্য। তবে খালি স্ট্যাম্পে বা কার্টিস পেপারে স্বাক্ষর নেয়া হয়নি। দারোগা বলেন, মামলার আপসের বিষয়ে চাপ সৃষ্টির কথা সত্য নয়। তবে আবদুল মালেকের ওই সময় উপস্থিত থাকার কথা স্বীকার করে বলেন, মালেক মামলার আসামি সেটা জানা ছিল না। সাড়ে পাঁচ মাসেও এ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা গ্রেফতার না হওয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে এসআই ইমাম হোসেন বলেন, এই মামলায় ১০ জন আসামি ছিল। এর মধ্যে বাদীর সহযোগিতায় ৯নং আসামি মছুদা খাতুনকে আটক করা হয়েছে। বাকি নয়জনকে পাওয়া যাচ্ছে না। হত্যা মামলার ব্যাপারে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, এতদিন কেন আসামি ধরা হয়নি এবং মামলার বাদীকে আপসের চাপ সৃষ্টির ব্যাপারে যদি সত্যতা মিলে তা হলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। কক্সবাজার জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল বলেন, মামলা রেকর্ডের সাড়ে পাঁচ মাসেও যদি আসামি আটক না হয়ে থাকে তাহলে খুবই দুঃখজনক। তাছাড়া আসামির সঙ্গে তদন্তকারী কর্মকর্তার আঁতাত থাকলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×