রৌমারীর ২৫ গ্রাম

ব্রিজের অভাবে নয় মাস অবরুদ্ধ জীবনযাপন

  রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাত্র দুটি ব্রিজের অভাবে বছরে নয় মাস অবরুদ্ধ জীবনযাপন করতে হয় রৌমারী উপজেলার ২৫ গ্রামের ৪০ হাজার মানুষকে। উপজেলার দক্ষিণ-পূর্ব সীমান্তঘেঁষা ওই ২৫ গ্রামে যাতায়াতের গুরুত্বপূর্ণ সরকটির ওপড় ব্রিজ নির্মাণ না করায় প্রায় ৪১ বছর ধরে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে জনসাধারণ। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে ভাঙা সাঁকো ও ডিঙ্গি নৌকা দিয়ে।

উপজেলার দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত কাশিয়াবাড়ী ও বাওয়ার গ্রামের দুটি অংশে বছরে নয় মাস পানি থাকে। এখানে দুটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের। এ নিয়ে এলাকায় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মিছিল মিটিং ও সমাবেশ হয়েছে। তবুও কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। ব্রিজ না থাকায় সীমান্তঘেঁষা বড়াইবাড়ী, বারবান্দা, উত্তর বারবান্দা, চুলিয়ারচর, পাটাধোয়া, পুরাতন চুলিয়ারচর, ঝাউবাড়ি, কলাবাড়ী, দুবলাবাড়ি, বকবান্দা, বাওয়ারগ্রাম, জাদুরচর, মাদার টিলা, ইজলামারী, কাশিয়াবাড়ি, কিতাবসরকারের গ্রাম, জাদুরচর পূর্বপাড়া, খেওয়ারচর, আলগারচর, বকবান্দা ব্যাপারী পাড়া, পূর্ব দুবলাবাড়ি এবং কর্তিমারী জাদুরচর ইউনিয়নের কিছু অংশসহ প্রায় ৪০ হাজার সীমান্তবাসী যাতায়াতের দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ব্রিজের অভাবেই সীমান্তঘেঁষা এ এলাকা অবহেলিত। বাওয়ার গ্রামের ইস্রাফিল হক মেম্বর চুলিয়ারচরের আ. রউব, ঝাউবাড়ি গ্রামের আলী মাস্টার জানান, ‘উপজেলা যাওনের দুটি ব্রিজ না থাকায় আমগো ছেলেমেয়েদের বিয়ের ভালো সম্বন্ধ আহে না।’ উপজেলা প্রকৌশলী আবদুল কাউয়ুম বলেন, ব্রিজ নির্মাণের ব্যাপারে একাধিকবার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। বরাদ্দ পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter