কেন্দুয়ায় স্কুলছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন

সালিশে মীমাংসার পর সংঘর্ষ

  কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের ঘটনা সালিশের মাধ্যমে মীমাংসার পর দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে কয়েক দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে সুজন মিয়া, চন্দন মিয়া, শফিকুল ইসলাম, আবু মিয়া, রেণু মিয়াসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। আহত সুজন মিয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উপজেলার মজলিশপুর উত্তরপাড়া ও মজলিশপুর মাইজপাড়া গ্রামের লোকজনের মধ্যে বুধবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, মজলিশপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় শনিবার সন্ধ্যায় ছাত্রীর মামা বাদী হয়ে সাব্বির ও তার সহযোগী লিংকনসহ অজ্ঞাত আরও ২-৩ জনের বিরুদ্ধে কেন্দুয়া থানায় অভিযোগ করেছিলেন। ঘটনাটি মীমাংসার জন্য দু’পক্ষের লোকজনকে নিয়ে মজলিশপুর ঈদগা মাঠে সালিশ দরবারে বসে এলাকার মাতব্বররা। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান রেহানের সভাপতিত্বে সালিশে সাব্বির তার দোষ স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করলে উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতা হয়। সমঝোতার পর স্থানীয় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে উভয় পক্ষের লোকজন গিয়ে অভিযোগ প্রত্যাহার করেন। অভিযোগ প্রত্যাহারের সঙ্গে সঙ্গেই সাব্বির, লিংকন ও হানিফ তাদের লোকজন নিয়ে ওই স্কুলছাত্রীর মামাসহ তাদের লোকজনের ওপর হামলা করে। পরে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে ফের কয়েক দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter