‘শিলং তীর’ জুয়ায় নিঃস্ব হচ্ছে রামগড়ের মানুষ

  রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘শিলং তীর’ নামক জুয়ায় নিঃস্ব হতে বসেছে হাজার হাজার পাহাড়ি ও বাঙালি পরিবার। সম্প্রতি পুরো রামগড় উপজেলায় ছড়িয়ে পড়েছে শিলং তীর জুয়া। বাংলাদেশের সিলেটের একেবারে কাছেই অবস্থান ভারতের মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী শিলংয়ের। সিলেটের তামাবিল সীমান্ত পেরোলেই ওপারে শিলংয়ের পথ। শিলংয়ে জুয়াড়িদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় জুয়ার আসর হচ্ছে ‘তীর’। ১ থেকে ৯৯ পর্যন্ত সংখ্যাভিত্তিক এই জুয়া এখন মহামারী রূপে ছড়িয়ে পড়েছে রামগড়জুড়ে। শুরুতে নির্দিষ্ট দু’একটি জায়গায় এ সর্বনাশা জুয়ার আসর বসলেও এখন তা লাগামহীনভাবে যেখানে সেখানে বসছে।। ৫ মাস ধরে উপজেলার ২০-২৫টি স্পটে স্থানীয় এজেন্টের মাধ্যমে জুয়াটি পরিচালিত হলেও প্রশাসন নীরব। বর্তমানে একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমেও ‘শিলং তীর’র জুয়ার আসর পরিচালিত হচ্ছে। অনুসন্ধানে জানা যায়, ভারতের শিলং থেকে ‘শিলং তীর’ নামক জুয়া বছর কয়েক আগে সিলেটের সীমান্তবর্তী উপজেলা গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর ও কানাইঘাটে বিস্তার লাভ করে। এসব উপজেলা থেকে প্রায় দুই বছরে এ জুয়াটি মহামারী রূপে ছড়িয়ে পড়তে থাকে সিলেট মহানগরীসহ সারা দেশে। প্রতিটি সংখ্যায় সর্বনিু ৫ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ অনির্ধারিত টাকা দিয়ে জুয়াটি খেলা যায়। ৫ টাকায় ৪০০ টাকা, ১০ টাকায় ৮০০ টাকা- এভাবে শত শত গুণ লাভের আশায় জুয়াটির প্রতি হুমড়ি খেয়ে পড়ে অন্য অঞ্চলের মতো রামগড় পার্বত্যাঞ্চলের হাজার হাজার পাহাড়ি-বাঙালি। কিন্তু লোভে পড়ে অর্থ হারিয়ে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন তারা। রামগড়ের কমপাড়া, গর্জনতলী, বল্টুরাম, জগন্নাথপাড়া, মাস্টারপাড়া, রামগড় বাজার, নাকাপা, দাতারামপাড়া, পাতাছড়া, মধুপুর, থলিপাড়া, বৈদ্যপাড়া, লাচারীপাড়াসহ অন্তত ২০-২৫টি এজেন্ট পয়েন্ট রয়েছে শিলংয়ের। এলাকার স্থানীয় প্রভাবশালীরা এজেন্টুগুলো পরিচালনা করে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এসব এজেন্ট পয়েন্টে বসে জুয়ার আসর। এর মধ্যেই আরেকটি চক্র অধিক মুনাফার লোভে নিজেরাই ভারতীয় শিলংয়ের আদলে রামগড়ে গড়ে তুলেছে নতুন আরেকটি শিলং। ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় প্রভাবশালী নেতারা ছাড়াও পাহাড়ের কয়েকটি সন্ত্রাসী দল এবং স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতায় জুয়াটি অবাধে চলছে বলে কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে। রামগড় থানার ওসি তারেক মো. আবদুল হান্নান জানান, এ থানায় আমি নতুন এসে এ ব্যাপারে অবগত হয়েই একজন এসআইয়ের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে ‘শিলং তীর’ জুয়া খেলার কিছু আলমত জব্দ করি। জেলা মিটিংয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter