উদ্বোধনের আগেই খুলে দেয়া হল দ্বিতীয় তিস্তা সেতু

  গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোনের আগে খুলে দেয়া হয়েছে দ্বিতীয় তিস্তা সেতু। ফলে প্রতিদিন সেতু দিয়ে বিভিন্ন ধরনের যানসহ মানুষ চলাচল করছে। আর এ সুযোগে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন চলাচলরত যান ও মানুষের কাছ থেকে অবৈধভাবে টোল আদায় করছে। এতে সেতু সংলগ্ন খেয়াঘাটের ইজারাদার রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। রংপুর ও লালমনিরহাট জেলার মানুষের দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবির এ সেতুর কাজ চলতি বছর জানুয়ারিতে শেষ হয়েছে। জানা যায়, ২০১০ সালের ২২ এপ্রিল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে তিস্তা দ্বিতীয় সড়ক সেতুর নির্মাণে স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীনে বৃহত্তর রংপুর-দিনাজপুর গ্রামীণ যোগাযোগ ও অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ১২১ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ২০১২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গঙ্গাচড়া উপজেলার মহিপুর ও লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা রুটে ৮৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে ও সাড়ে ৯ মিটার প্রস্থ দ্বিতীয় তিস্তা সেতু নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। সেতুটি নির্মাণকাজের দায়িত্ব পান ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নাভানা কনস্ট্রাকশন। এলজিইডি লালমনিরহাট ও রংপুর জেলা পরিষদ সেতু খুলে না দেয়ার জন্য চিঠি দিলেও তা মানছে না ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। চিঠি দেয়ার পরও সেতু দিয়ে চলাচল অব্যাহত রয়েছে। লক্ষ্মীটারী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল হাদী বলেন, প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক সেতু উদ্বোধনের আগেই খুলে দেয়া ঠিক হয়নি। সেতুর দায়িত্বে থাকা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা সেতু খুলে দেয়ার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.