ছাত্রী ধর্ষণের ভিডিও

শিবচরে অভিযুক্ত শিক্ষক লাপাত্তা

  শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শিবচরের উমেদপুর উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করে তা ভিডিও ধারণ করে টানা ৩ বছর শারীরিক সম্পর্ক করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই ছাত্রীর অভিযোগ উত্থাপনের পর ফাঁস হয় আরও কয়েকটি অনৈতিক সম্পর্কের ঘটনা। মিলেছে ছাত্রীদের সঙ্গে একাধিক অডিও রেকর্ডসহ বরবেশে ছবিসহ নানা তথ্য। সবকিছু হাতে পেয়েও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে গত দেড় মাসেও তেমন কোনো উদ্যোগ চোখে পড়েনি।

জানা যায়, উপজেলার উমেদপুর উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রবিউল ইসলাম তরুণ শিক্ষক। ৫ম ও ৮ম শ্রেণীতে বৃত্তিপ্রাপ্ত একই বিদ্যালয়ের এক দরিদ্র মেধাবী সুন্দরী ছাত্রীর সঙ্গে তিনি ৭ম শ্রেণীতে পড়ুয়া অবস্থায় বিশেষ খেয়াল রাখত। দরিদ্র হওয়ায় সহযোগিতার কারণে ওই ছাত্রী সহজেই রবিউলের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ে। স্ত্রী অন্য উপজেলায় চাকরি করার সুবাদে তার বাসায় নির্বিঘ্নে সবাই যাতায়াত করত। ৮ম শ্রেণীতে পড়–য়া অবস্থায় একদিন রবিউল মেয়েটিকে ধর্ষণ করে ভিডিও করে রাখে। এরপর থেকেই সুযোগ বুঝেই ভিডিও অন্যদের দেখানোর ভয় দেখিয়ে ও বিয়ের প্রলোভনে মেয়েটির সঙ্গে নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক গড়ে। একাধিকবার গর্ভপাতের ঘটনাও ঘটায়।

উমেদপুর উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রোকনুজ্জামান বলেন, ওই স্কুলছাত্রীর কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর শিক্ষক রবিউলকে প্রশ্ন করা হলে সে অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আগেই কৌশলে পালিয়ে গিয়ে এখন ফোনে ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন হুমকি দিচ্ছে। আর আমাকেও এ ব্যাপারে নিশ্চুপ থাকতে বিভিন্ন প্রলোভন দেখাচ্ছে। তবে আমরা সব শিক্ষক ও পরিচালনা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেছি। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

উমেদপুর উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কাদির খালাসী বলেন, আমরা অভিযোগের সত্যতা পেয়েছি। খুব শিগগিরই অভিযুক্ত শিক্ষক রবিউলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে রবিউলের সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter