রাজবাড়ীতে ১৬ মাসে দেড় শতাধিক অপমৃত্যু

  রাজবাড়ী প্রতিনিধি ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজবাড়ীতে অপমৃত্যুর ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। প্রতিনিয়ত ঝরে যাচ্ছে তরতাজা প্রাণ। পারিবারিক কলহ, শারীরিক ও মানসিক যন্ত্রণা, প্রেম-ভালোবাসা, অভাব-অনটন, মান-অভিমানসহ বিভিন্ন কারণে ঘটছে এসব ঘটনা।

রাজবাড়ীর জেলার ৫টি থানা পুলিশের রেকর্ড অনুযায়ী, ২০১৭ সালে ১৬৪ জন নর-নারীর অপমৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৭৫ জন পুরুষ এবং ৮৯ জন নারী। এছাড়া চলতি বছরের ৪ মাসেই ঝরে গেছে ৫৫টি প্রাণ। এসব অপমৃত্যুর ঘটনার বেশিরভাগই আত্মহত্যা। স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, তরুণ-তরুণীর পাশাপাশি বৃদ্ধ-বৃদ্ধারাও রয়েছে তালিকায়। ঘটছে চিরকুট লিখে রেখে আত্মহত্যার মতো ঘটনাও। বিষয়টি যেন সামাজিক ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। উপজেলাগুলোর মধ্যে সদর ও বালিয়াকান্দিতে অপমৃত্যুর ঘটনা বেশি ঘটছে। রাজবাড়ী সদর থানায় ২০১৭ সালে ৪৭টি ও বালিয়াকান্দি থানায় ৩৮টি এবং চলতি বছরের ৪ মাসে ১৫টি করে অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এ বিষয়ে রাজবাড়ী সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক রওশন আরা পারভেজ বলেন, মানসিক অবসাদজনিত কারণেই এসব ঘটনা বেশি ঘটছে। কিছু রোগ-ব্যাধির পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক অবস্থার কারণেও অনেকে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। পারিবারিক সচেতনতা বৃদ্ধি পেলে আত্মহত্যার প্রবণতা অনেকটা হ্রাস পাবে বলে তিনি মনে করেন। জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সবিতা চন্দ গুহ অপমৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, সামাজিক বৈষম্য, নারীর প্রতি বৈষম্য এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে আত্মহত্যার প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সিভিল সার্জন ডা. মো. রহিম বক্স বলেন, গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মধ্যে অর্থনৈতিক পশ্চাৎপদতা, শিক্ষার অভাব, কুসংস্কারসহ পারিবারিক কলহের কারণে এই প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। পাবলিক পরীক্ষায় খারাপ ফলাফলের কারণে পরিবারসহ আত্মীয়-স্বজনদের কথার কারণে মর্মাহত হয়ে অনেক শিক্ষার্থী আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.