বরগুনায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত
jugantor
বরগুনায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত

  যুগান্তর প্রতিবেদন, বরগুনা  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্যবসা করার জন্য তিন লাখ টাকা যৌতুক না পেয়ে তিন সন্তানের জননীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে স্ত্রী। বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান রোববার মামলাটি গ্রহণ করে বরগুনা পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর চম্পা বেগমকে সাত দিনের মধ্য তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। আসামি হলেন, বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার ঠংপাড়া গ্রামের সেকান্দার মিয়ার ছেলে আবদুল লতিফ।

জানা যায়, আবদুল লতিফের সঙ্গে পাথরঘাটার সেকান্দার মৃধার মেয়ে বিউটি বেগমের সঙ্গে ২০ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিউটির গর্ভে শাকিল, সাথী ও শাকিবের জন্ম হয়। আবদুল লতিফ ব্যবসা করার জন্য ১৪ সেপ্টেম্বর তিন লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে বিউটির কাছে। বিউটি যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে লতিফ সন্তানদের সামনে স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করে। সন্তানরা মাকে রক্ষা করতে গিয়ে ব্যর্থ হয়। বিউটি বেগম তার বোন জেসমিন তাৎক্ষণিক বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। বিউটি বেগম যুগান্তরকে বলেন, আমি বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে ১৮ সেপ্টেম্বর বরগুনা থানায় মামলা করতে গেলে থানা মামলা নেয়নি। আবদুল লতিফ বলেন, বিউটির অভিযোগ সঠিক নয়। আমি কোনো যৌতুক দাবি করিনি।

বরগুনা থানার ওসি কেএম তারিকুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কেউ মামলা করতে আসেনি।

বরগুনায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত

 যুগান্তর প্রতিবেদন, বরগুনা 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্যবসা করার জন্য তিন লাখ টাকা যৌতুক না পেয়ে তিন সন্তানের জননীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে স্ত্রী। বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান রোববার মামলাটি গ্রহণ করে বরগুনা পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর চম্পা বেগমকে সাত দিনের মধ্য তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। আসামি হলেন, বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার ঠংপাড়া গ্রামের সেকান্দার মিয়ার ছেলে আবদুল লতিফ।

জানা যায়, আবদুল লতিফের সঙ্গে পাথরঘাটার সেকান্দার মৃধার মেয়ে বিউটি বেগমের সঙ্গে ২০ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিউটির গর্ভে শাকিল, সাথী ও শাকিবের জন্ম হয়। আবদুল লতিফ ব্যবসা করার জন্য ১৪ সেপ্টেম্বর তিন লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে বিউটির কাছে। বিউটি যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে লতিফ সন্তানদের সামনে স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করে। সন্তানরা মাকে রক্ষা করতে গিয়ে ব্যর্থ হয়। বিউটি বেগম তার বোন জেসমিন তাৎক্ষণিক বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। বিউটি বেগম যুগান্তরকে বলেন, আমি বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে ১৮ সেপ্টেম্বর বরগুনা থানায় মামলা করতে গেলে থানা মামলা নেয়নি। আবদুল লতিফ বলেন, বিউটির অভিযোগ সঠিক নয়। আমি কোনো যৌতুক দাবি করিনি।

বরগুনা থানার ওসি কেএম তারিকুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কেউ মামলা করতে আসেনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন