গবেষণা শিক্ষায় নিবেদিত টাঙ্গাইলের আলীম স্যার
jugantor
গবেষণা শিক্ষায় নিবেদিত টাঙ্গাইলের আলীম স্যার

  জাফর আহমেদ, টাঙ্গাইল  

০৫ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অধ্যাপক আলীম মাহমুদ। পুরো নাম মো. আ. আলীম মিয়া। আলীম মাহমুদ নামেই তিনি জেলা ও জেলার বাইরে পরিচিত। তিনি একাধারে কবি, গীতিকার, সুরকার ও চর্যাপদ গবেষক। এর পাশাপাশি শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি। তার প্রচেষ্টায় গ্রামের বাড়ি কচুয়ায় প্রি-ক্যাডেট স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা, দাতব্য চিকিৎসালয় হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম চলছে সম্পূর্ণ অবৈতনিকভাবে। বর্তমানে তিনি সরকারি সাদত কলেজের অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার দক্ষতায় কলেজের অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। করোনাকালে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে ক্লাস চালু রেখেছেন।

অধ্যাপক আলীম মাহমুদ ১৯৬৩ সালের ২ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কচুয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮৮ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় দ্বিতীয় বিভাগে মাস্টার্স পাস করেন। ১৯৯৩ সালে বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসাবে চাকরি জীবন শুরু করেন তিনি। আলীম মাহমুদ অধ্যাপনার পাশাপাশি নানা সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। তিনি বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ বাংলাদেশের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। চর্যা সহজিয়া গ্রন্থিকদল বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক, সখীপুরে আবাহন সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক তিনি। এ দুটি সংগঠন বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত।

বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী আলীম মাহমুদ চর্যাপদের পদকর্তাদের উল্লিখিত রাগে গবেষণা-উত্তর সুর তৈরি করছেন অনেকদিন ধরেই। ইতিমধ্যে ১২টি চর্যাপদের সুর সংবলিত তার কণ্ঠের ভিসিডি সংকলন ‘চর্যাগান’ শিরোনামে এখন সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে। দ্বিতীয় সংকলনটিও বাজারে পাওয়া যাবে। ‘চর্যাপদ বাংলা গানের আদিমাতা কাআ তরুবর’ ও ‘চর্যাগান’ নিয়ে আলীম মাহমুদের গবেষণা গ্রন্থ রয়েছে। এছাড়া কাব্য, প্রবন্ধ ও উপন্যাস রয়েছে তার।

অধ্যাপক আলীম মাহমুদ জানান, বাবা আ. খালেক মিয়া ছিলেন শিক্ষানুরাগী। তার স্বপ্ন ছিল সন্তানরা উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হবে। বাবার অনুপ্রেরণাতেই মূলত শিক্ষকতা পেশায় আসা আলীম মাহমুদের। আলীম মাহমুদের মেয়ে চিকিৎসক। ছেলে এখনও লেখাপড়া করছে। তার স্ত্রী মোসলেমা খাতুনও একজন শিক্ষক।

কোচিং বাণিজ্য পছন্দ নয় অধ্যাপক আলীম মাহমুদের। মেধাবী জাতি গঠনে কোচিং সেন্টার অন্তরায় বলে মনে করেন তিনি।

গবেষণা শিক্ষায় নিবেদিত টাঙ্গাইলের আলীম স্যার

 জাফর আহমেদ, টাঙ্গাইল 
০৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অধ্যাপক আলীম মাহমুদ। পুরো নাম মো. আ. আলীম মিয়া। আলীম মাহমুদ নামেই তিনি জেলা ও জেলার বাইরে পরিচিত। তিনি একাধারে কবি, গীতিকার, সুরকার ও চর্যাপদ গবেষক। এর পাশাপাশি শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি। তার প্রচেষ্টায় গ্রামের বাড়ি কচুয়ায় প্রি-ক্যাডেট স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা, দাতব্য চিকিৎসালয় হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম চলছে সম্পূর্ণ অবৈতনিকভাবে। বর্তমানে তিনি সরকারি সাদত কলেজের অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার দক্ষতায় কলেজের অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। করোনাকালে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে ক্লাস চালু রেখেছেন।

অধ্যাপক আলীম মাহমুদ ১৯৬৩ সালের ২ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কচুয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮৮ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় দ্বিতীয় বিভাগে মাস্টার্স পাস করেন। ১৯৯৩ সালে বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসাবে চাকরি জীবন শুরু করেন তিনি। আলীম মাহমুদ অধ্যাপনার পাশাপাশি নানা সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। তিনি বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ বাংলাদেশের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। চর্যা সহজিয়া গ্রন্থিকদল বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক, সখীপুরে আবাহন সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠক তিনি। এ দুটি সংগঠন বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত।

বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী আলীম মাহমুদ চর্যাপদের পদকর্তাদের উল্লিখিত রাগে গবেষণা-উত্তর সুর তৈরি করছেন অনেকদিন ধরেই। ইতিমধ্যে ১২টি চর্যাপদের সুর সংবলিত তার কণ্ঠের ভিসিডি সংকলন ‘চর্যাগান’ শিরোনামে এখন সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে। দ্বিতীয় সংকলনটিও বাজারে পাওয়া যাবে। ‘চর্যাপদ বাংলা গানের আদিমাতা কাআ তরুবর’ ও ‘চর্যাগান’ নিয়ে আলীম মাহমুদের গবেষণা গ্রন্থ রয়েছে। এছাড়া কাব্য, প্রবন্ধ ও উপন্যাস রয়েছে তার।

অধ্যাপক আলীম মাহমুদ জানান, বাবা আ. খালেক মিয়া ছিলেন শিক্ষানুরাগী। তার স্বপ্ন ছিল সন্তানরা উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হবে। বাবার অনুপ্রেরণাতেই মূলত শিক্ষকতা পেশায় আসা আলীম মাহমুদের। আলীম মাহমুদের মেয়ে চিকিৎসক। ছেলে এখনও লেখাপড়া করছে। তার স্ত্রী মোসলেমা খাতুনও একজন শিক্ষক।

কোচিং বাণিজ্য পছন্দ নয় অধ্যাপক আলীম মাহমুদের। মেধাবী জাতি গঠনে কোচিং সেন্টার অন্তরায় বলে মনে করেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্ব শিক্ষক দিবস

০৫ অক্টোবর, ২০২১