পান বিক্রেতা থেকে সফল শিক্ষক
jugantor
পান বিক্রেতা থেকে সফল শিক্ষক

  শফিকুল ইসলাম তালুকদার, খালিয়াজুরী ( নেত্রকোনা)  

০৫ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার লেপশিয়া গ্রামে একসময় ফেরি করে পান বিক্রি করতেন অমিও ধর। অদম্য ইচ্ছা আর দৃঢ় প্রত্যয়ের কারণে সেই ছেলেটিই এখন সফল প্রধান শিক্ষক হয়েছেন। লেপশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠান প্রধান তিনি। সফলভাবে বিদ্যালয় পরিচালনার জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে ২০১৭ সালে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হয়েছিলেন। একই বছর তার প্রতিষ্ঠান শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হয়।

জানা গেছে, দুই ভাই, চার বোনসহ ৮ জনের সংসারে বাবাকে সহযোগিতা করতেই লেখাপাড়ার পাশাপাশি লেপশিয়া বাজারের রাস্তায় রাস্তায় পান-সিগারেট ফেরি করে বিক্রি করতেন অমিও ধর। তখন এলাকায় শিক্ষার হার একেবারেই কম ছিল। তাই দৃঢ়প্রত্যয়ী অমিও ধর লেপশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণি পাশ করে শালদীঘা গোপাল গোপিনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হন। পড়াশোনার পাশাপাশি বাজারে ও ট্রলার ঘাটে পান বিক্রি করেন। পরে অষ্টম শ্রেণি পাশ করে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলা জয়হরি স্প্রাই উচ্চ বিদ্যালয়ে। ১৯৮৪ সালে বিজ্ঞান শাখা থেকে এসএসসি পাশ করে আবার নিজ এলাকার লেপশিয়া বাজারে কাঠের ব্যবসা শুরু করেন। ব্যবসার পাশাপাশি ভর্তি হন কেন্দুয়া কলেজে। এর মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হন। ১৯৮৫ সালে উপজেলার পাতরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন। ১৯৮৬ সালে কেন্দুয়া কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। পরে ১৯৯০ সালে ময়মনসিংহের গৌরীপুর সরকারি কলেজ থেকে বিএসসি পাশ করেন অমিও ধর। ১৯৯৯ সালে লেপশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন।

অমিও ধর যুগান্তরকে বলেন, সফল হওয়ার জন্য দরকার মনোবল ও আত্মবিশ্বাস। এটি থাকলে যে কেউ বিজয়ী হওয়া সম্ভব। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, অমিও ধর একজন আদর্শ শিক্ষক, পাঠ্য-বিষয়বস্তু ভালোভাবে ব্যাখ্যা করতে পারেন তিনি। সৃজনশীল মনোভাব ও সময়ের সঙ্গে শিক্ষার মান উন্নয়নে ক্ষেত্রে যথেষ্ট সার্থক।

পান বিক্রেতা থেকে সফল শিক্ষক

 শফিকুল ইসলাম তালুকদার, খালিয়াজুরী ( নেত্রকোনা) 
০৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার লেপশিয়া গ্রামে একসময় ফেরি করে পান বিক্রি করতেন অমিও ধর। অদম্য ইচ্ছা আর দৃঢ় প্রত্যয়ের কারণে সেই ছেলেটিই এখন সফল প্রধান শিক্ষক হয়েছেন। লেপশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠান প্রধান তিনি। সফলভাবে বিদ্যালয় পরিচালনার জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে ২০১৭ সালে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হয়েছিলেন। একই বছর তার প্রতিষ্ঠান শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হয়।

জানা গেছে, দুই ভাই, চার বোনসহ ৮ জনের সংসারে বাবাকে সহযোগিতা করতেই লেখাপাড়ার পাশাপাশি লেপশিয়া বাজারের রাস্তায় রাস্তায় পান-সিগারেট ফেরি করে বিক্রি করতেন অমিও ধর। তখন এলাকায় শিক্ষার হার একেবারেই কম ছিল। তাই দৃঢ়প্রত্যয়ী অমিও ধর লেপশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণি পাশ করে শালদীঘা গোপাল গোপিনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হন। পড়াশোনার পাশাপাশি বাজারে ও ট্রলার ঘাটে পান বিক্রি করেন। পরে অষ্টম শ্রেণি পাশ করে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলা জয়হরি স্প্রাই উচ্চ বিদ্যালয়ে। ১৯৮৪ সালে বিজ্ঞান শাখা থেকে এসএসসি পাশ করে আবার নিজ এলাকার লেপশিয়া বাজারে কাঠের ব্যবসা শুরু করেন। ব্যবসার পাশাপাশি ভর্তি হন কেন্দুয়া কলেজে। এর মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হন। ১৯৮৫ সালে উপজেলার পাতরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন। ১৯৮৬ সালে কেন্দুয়া কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। পরে ১৯৯০ সালে ময়মনসিংহের গৌরীপুর সরকারি কলেজ থেকে বিএসসি পাশ করেন অমিও ধর। ১৯৯৯ সালে লেপশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন।

অমিও ধর যুগান্তরকে বলেন, সফল হওয়ার জন্য দরকার মনোবল ও আত্মবিশ্বাস। এটি থাকলে যে কেউ বিজয়ী হওয়া সম্ভব। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, অমিও ধর একজন আদর্শ শিক্ষক, পাঠ্য-বিষয়বস্তু ভালোভাবে ব্যাখ্যা করতে পারেন তিনি। সৃজনশীল মনোভাব ও সময়ের সঙ্গে শিক্ষার মান উন্নয়নে ক্ষেত্রে যথেষ্ট সার্থক।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্ব শিক্ষক দিবস

০৫ অক্টোবর, ২০২১