তালতলীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় ৩ নারীকে পিটিয়ে আহত
jugantor
তালতলীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় ৩ নারীকে পিটিয়ে আহত

  যুগান্তর প্রতিবেদন, আমতলী  

১৮ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাওনা টাকা চাইতে যাওয়ায় অন্তঃসত্ত্বাসহ তিন নারীকে মালেক হাওলাদার ও তার সহযোগীরা পিটিয়ে আহত করেছে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত আনোয়ারা বেগম এমন অভিযোগ করেন। আনোয়ারা বেগম, বিউটি বেগম ও অন্তঃসত্ত্বা লিয়ামনিকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে তালতলী উপজেলার ছোট ভাইজোড়া গ্রামে শনিবার রাতে।

জানা গেছে, ছোট ভাইজোড়া গ্রামের মালেক হাওলাদার প্রতিবেশী আনোয়ারা বেগম কাছ থেকে চার বছর আগে ২০ হাজার টাকা ধার নেন। ওই টাকা ফেরত দেননি এমন অভিযোগ আনোয়ারা বেগমের। শনিবার বিকেলে আনোয়ারা বেগমের বৃদ্ধা মা তারাভানু ওই টাকা চাইতে মালেকের কাছে যান। মালেক টাকা না দিয়ে বৃদ্ধা তারাভানুকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে তাড়িয়ে দেন। বৃদ্ধা মাকে গালাগালের বিষয়টি জানতে আনোয়ারা বেগম ওইদিন রাতে মালেকের বাড়িতে যান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মালেক হাওলাদার, তার ছেলে রুবেল, আলি আহম্মদ ও মাসুম আনোয়ারাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। তাকে রক্ষায় তার ছোট বোন বিউটি বেগম ও বোনের মেয়ে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা লিয়ামনি এগিয়ে আসলে তাদের বেধড়ক মারধর করেছে। স্বজনরা দ্রুত তাদের উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। গুরুতর আহত আনোয়ারা বেগম বলেন, মা ওই টাকা চাইতে গেলে মাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে। আমি বিষয়টি জানতে গেলে আমাকে পিটিয়ে চোখ, ঠোঁট, মুখমণ্ডলসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করেছে। এ বিষয় মালেক হাওলাদারের ছেলে রুবেল মুঠোফোনে পাওনা টাকা ও মারধরের কথা স্বীকার করে বলেন, আনোয়ারা বেগমের বোন বিউটি বেগম আমার দাদিকে মারধর করেছে। তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তালতলীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় ৩ নারীকে পিটিয়ে আহত

 যুগান্তর প্রতিবেদন, আমতলী 
১৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাওনা টাকা চাইতে যাওয়ায় অন্তঃসত্ত্বাসহ তিন নারীকে মালেক হাওলাদার ও তার সহযোগীরা পিটিয়ে আহত করেছে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত আনোয়ারা বেগম এমন অভিযোগ করেন। আনোয়ারা বেগম, বিউটি বেগম ও অন্তঃসত্ত্বা লিয়ামনিকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে তালতলী উপজেলার ছোট ভাইজোড়া গ্রামে শনিবার রাতে।

জানা গেছে, ছোট ভাইজোড়া গ্রামের মালেক হাওলাদার প্রতিবেশী আনোয়ারা বেগম কাছ থেকে চার বছর আগে ২০ হাজার টাকা ধার নেন। ওই টাকা ফেরত দেননি এমন অভিযোগ আনোয়ারা বেগমের। শনিবার বিকেলে আনোয়ারা বেগমের বৃদ্ধা মা তারাভানু ওই টাকা চাইতে মালেকের কাছে যান। মালেক টাকা না দিয়ে বৃদ্ধা তারাভানুকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে তাড়িয়ে দেন। বৃদ্ধা মাকে গালাগালের বিষয়টি জানতে আনোয়ারা বেগম ওইদিন রাতে মালেকের বাড়িতে যান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মালেক হাওলাদার, তার ছেলে রুবেল, আলি আহম্মদ ও মাসুম আনোয়ারাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। তাকে রক্ষায় তার ছোট বোন বিউটি বেগম ও বোনের মেয়ে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা লিয়ামনি এগিয়ে আসলে তাদের বেধড়ক মারধর করেছে। স্বজনরা দ্রুত তাদের উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। গুরুতর আহত আনোয়ারা বেগম বলেন, মা ওই টাকা চাইতে গেলে মাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে। আমি বিষয়টি জানতে গেলে আমাকে পিটিয়ে চোখ, ঠোঁট, মুখমণ্ডলসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করেছে। এ বিষয় মালেক হাওলাদারের ছেলে রুবেল মুঠোফোনে পাওনা টাকা ও মারধরের কথা স্বীকার করে বলেন, আনোয়ারা বেগমের বোন বিউটি বেগম আমার দাদিকে মারধর করেছে। তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন