বৃদ্ধ মাকে ফেলে গেল রাস্তায় আশ্রয় দিলেন গ্রামবাসী
jugantor
ব্যাংকার ডাক্তারসহ ৮ সন্তানই প্রতিষ্ঠিত
বৃদ্ধ মাকে ফেলে গেল রাস্তায় আশ্রয় দিলেন গ্রামবাসী

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২২ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে মরিয়ম বেগম নামে শতবর্ষী বৃদ্ধা মায়ের ঠাঁই হল না নিজের গর্ভে রাখা সন্তানদের কাছে। বিসিএস ক্যাডার ডাক্তার, ব্যাংকার, ইঞ্জিনিয়ার, ব্যবসায়ী ও প্রবাসীসহ সব সন্তানই সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিত ও সচ্ছল। এরপরও বৃদ্ধ মায়ের নামের জমি লিখে দিতে রাজি না হওয়ায় তাকে গাড়িযোগে ফেলে দেওয়া হলো রাস্তায়। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে আশ্রয় দিয়েছেন গ্রামবাসী। করছেন সেবাশুশ্রূষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কুশুরা ইউনিয়নের নরসিংহপুর গ্রামে। সরেজমিন জানা যায়, ওই গ্রামের প্রয়াত মো. আসুরুদ্দিন সরকার নামে এক ধনাঢ্য ব্যক্তির ছেলে ও এক মেয়ে ছিল। তাঁতশিল্পসহ কয়েকশ’ বিঘা জমি ছিল আসুরুদ্দিন সরকারের। তাই একমাত্র মেয়ে মরিয়ম বেগমের সুখের কথা ভেবে তাকে ১৫ বিঘা জমি লিখে দিয়ে বিলাসবহুল একটি বাড়ি নির্মাণ করে দিয়ে বিয়ে দেন। এরপর মেয়ের জামাতা মো. আব্দুস সালামকে ঘরজামাই হিসাবে বাড়িতে প্রতিষ্ঠিত করেন। পরবর্তীতে মরিয়ম বেগমের ছয় ছেলে ও দুই মেয়েসহ আট সন্তানের জননী হন। প্রত্যেক সন্তানকেই তিনি লেখাপড়া শিকিয়ে সুপ্রতিষ্ঠিত করেন। বড় ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আক্তারুজ্জামান এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তা। ছোট ছেলে মো. হুমায়ুন কবীর বিসিএস কর্মকর্তা (ডাক্তার)। তিনি মানিকগঞ্জ সরকারি আবাসিক হাসপাতালে কর্মরত। অপর তিন ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সাকী ও আব্দুল্লাহেল বাকী নামকরা ব্যবসায়ী এবং আলমগীর হোসেন বিদেশে ভালো বেতনে চাকরি করেন। সবাই সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিত। তাদের কারও সংসারে কোনো অভাব-অনটন নেই। শুধু বৃদ্ধ মাকে ভরণপোষণ করতে যেন তাদের অভাবের শেষ নেই। ঠিকমতো খেতে না পেয়ে বাকশক্তি হারিয়ে ফেলার উপক্রম হয়েছে তার। সন্তানদের কাছে বিষয়টি বারবার বলায় ক্ষিপ্ত হয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই শতবর্ষী বৃদ্ধ মাকে চিকিৎসার কথা বলে গাড়িতে তুলে স্থানীয় বঙ্গবাজারের পাশে রাস্তার ওপর ফেলে রেখে যায় সন্তানরা। তার গোঙানির শব্দ পেয়ে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় মো. আব্দুল লতিফের বাড়িতে নিয়ে সেবা-শুশ্রূষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

ব্যাংকার ডাক্তারসহ ৮ সন্তানই প্রতিষ্ঠিত

বৃদ্ধ মাকে ফেলে গেল রাস্তায় আশ্রয় দিলেন গ্রামবাসী

 ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২২ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে মরিয়ম বেগম নামে শতবর্ষী বৃদ্ধা মায়ের ঠাঁই হল না নিজের গর্ভে রাখা সন্তানদের কাছে। বিসিএস ক্যাডার ডাক্তার, ব্যাংকার, ইঞ্জিনিয়ার, ব্যবসায়ী ও প্রবাসীসহ সব সন্তানই সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিত ও সচ্ছল। এরপরও বৃদ্ধ মায়ের নামের জমি লিখে দিতে রাজি না হওয়ায় তাকে গাড়িযোগে ফেলে দেওয়া হলো রাস্তায়। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে আশ্রয় দিয়েছেন গ্রামবাসী। করছেন সেবাশুশ্রূষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কুশুরা ইউনিয়নের নরসিংহপুর গ্রামে। সরেজমিন জানা যায়, ওই গ্রামের প্রয়াত মো. আসুরুদ্দিন সরকার নামে এক ধনাঢ্য ব্যক্তির ছেলে ও এক মেয়ে ছিল। তাঁতশিল্পসহ কয়েকশ’ বিঘা জমি ছিল আসুরুদ্দিন সরকারের। তাই একমাত্র মেয়ে মরিয়ম বেগমের সুখের কথা ভেবে তাকে ১৫ বিঘা জমি লিখে দিয়ে বিলাসবহুল একটি বাড়ি নির্মাণ করে দিয়ে বিয়ে দেন। এরপর মেয়ের জামাতা মো. আব্দুস সালামকে ঘরজামাই হিসাবে বাড়িতে প্রতিষ্ঠিত করেন। পরবর্তীতে মরিয়ম বেগমের ছয় ছেলে ও দুই মেয়েসহ আট সন্তানের জননী হন। প্রত্যেক সন্তানকেই তিনি লেখাপড়া শিকিয়ে সুপ্রতিষ্ঠিত করেন। বড় ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আক্তারুজ্জামান এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তা। ছোট ছেলে মো. হুমায়ুন কবীর বিসিএস কর্মকর্তা (ডাক্তার)। তিনি মানিকগঞ্জ সরকারি আবাসিক হাসপাতালে কর্মরত। অপর তিন ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সাকী ও আব্দুল্লাহেল বাকী নামকরা ব্যবসায়ী এবং আলমগীর হোসেন বিদেশে ভালো বেতনে চাকরি করেন। সবাই সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিত। তাদের কারও সংসারে কোনো অভাব-অনটন নেই। শুধু বৃদ্ধ মাকে ভরণপোষণ করতে যেন তাদের অভাবের শেষ নেই। ঠিকমতো খেতে না পেয়ে বাকশক্তি হারিয়ে ফেলার উপক্রম হয়েছে তার। সন্তানদের কাছে বিষয়টি বারবার বলায় ক্ষিপ্ত হয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই শতবর্ষী বৃদ্ধ মাকে চিকিৎসার কথা বলে গাড়িতে তুলে স্থানীয় বঙ্গবাজারের পাশে রাস্তার ওপর ফেলে রেখে যায় সন্তানরা। তার গোঙানির শব্দ পেয়ে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় মো. আব্দুল লতিফের বাড়িতে নিয়ে সেবা-শুশ্রূষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন