ওভারটেকিং-বেপরোয়া গতিই বেশিরভাগ দুর্ঘটনার কারণ
jugantor
রাজশাহীতে আলোচনা সভায় বক্তারা
ওভারটেকিং-বেপরোয়া গতিই বেশিরভাগ দুর্ঘটনার কারণ

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কথায় বলে- ‘গতিই জীবন’। তবে সেই গতিই বেশিরভাগ সড়ক দুর্ঘটনার কারণ। বেপরোয়া গতি আর ঝুঁকিপূর্ণ ওভারটেকিংয়ের কারণেই সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০২১ উপলক্ষ্যে রাজশাহীতে আয়োজিত জনসচেতনতামূলক সভায় সড়ক বিভাগ, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) এবং ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে এ কথা বলেছেন। শুক্রবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বিআরটিএ’র রাজশাহী সার্কেল এর আয়োজন করে। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল। সভায় বক্তারা বলেন, তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ৬৭ শতাংশ দুর্ঘটনায় ঘটে সোজা সড়কে। বাকি ৩৩ ভাগ দুর্ঘটনা ঘটে সড়কের বাঁকে। এতে প্রমাণিত হয়, বেপরোয়া মনোভাবই বেশিরভাগ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে বিআরটিএ’র রাজশাহী বিভাগের উপপরিচালক আশরাকুর রহমান গত মার্চে রাজশাহীর কাটাখালীতে বাস ও মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে ১৭ জন নিহত হওয়ার ঘটনার প্রসঙ্গ টানেন। তিনি বলেন, ওই দুর্ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে দেখা যায় ও মাইক্রোবাস দুটিরই গতি ছিলো ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটারের বেশি। সামনে বাঁশবাহী ভ্যান থাকাস্বত্বেও মাইক্রোবাসটি ঝুঁকিপূর্ণ ওভারটেকিং করছিল।

সভায় রাজশাহীর পুলিশ সুপারের পক্ষে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু সালেহ মো. আশরাফুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও ছিলেন- রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. কাইয়ুম তালুকদার, মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী কমিশনার শারমিন আক্তার, জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার নিয়াজ মেহেদী, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর জেলা সভাপতি তৌফিক আহসান টিটু প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাবিহা সুলতানা।

রাজশাহীতে আলোচনা সভায় বক্তারা

ওভারটেকিং-বেপরোয়া গতিই বেশিরভাগ দুর্ঘটনার কারণ

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কথায় বলে- ‘গতিই জীবন’। তবে সেই গতিই বেশিরভাগ সড়ক দুর্ঘটনার কারণ। বেপরোয়া গতি আর ঝুঁকিপূর্ণ ওভারটেকিংয়ের কারণেই সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০২১ উপলক্ষ্যে রাজশাহীতে আয়োজিত জনসচেতনতামূলক সভায় সড়ক বিভাগ, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) এবং ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে এ কথা বলেছেন। শুক্রবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বিআরটিএ’র রাজশাহী সার্কেল এর আয়োজন করে। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল। সভায় বক্তারা বলেন, তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ৬৭ শতাংশ দুর্ঘটনায় ঘটে সোজা সড়কে। বাকি ৩৩ ভাগ দুর্ঘটনা ঘটে সড়কের বাঁকে। এতে প্রমাণিত হয়, বেপরোয়া মনোভাবই বেশিরভাগ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে বিআরটিএ’র রাজশাহী বিভাগের উপপরিচালক আশরাকুর রহমান গত মার্চে রাজশাহীর কাটাখালীতে বাস ও মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে ১৭ জন নিহত হওয়ার ঘটনার প্রসঙ্গ টানেন। তিনি বলেন, ওই দুর্ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে দেখা যায় ও মাইক্রোবাস দুটিরই গতি ছিলো ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটারের বেশি। সামনে বাঁশবাহী ভ্যান থাকাস্বত্বেও মাইক্রোবাসটি ঝুঁকিপূর্ণ ওভারটেকিং করছিল।

সভায় রাজশাহীর পুলিশ সুপারের পক্ষে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু সালেহ মো. আশরাফুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও ছিলেন- রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. কাইয়ুম তালুকদার, মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী কমিশনার শারমিন আক্তার, জেলা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার নিয়াজ মেহেদী, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর জেলা সভাপতি তৌফিক আহসান টিটু প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাবিহা সুলতানা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন