গৃহবধূকে নির্যাতন করে তাড়িয়ে দিল স্বামী
jugantor
বুড়িচংয়ে যৌতুক দাবি
গৃহবধূকে নির্যাতন করে তাড়িয়ে দিল স্বামী

  বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১২ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার যৌতুকের জন্য মাদকাসক্ত স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন দুই সন্তানের মা পপি বেগম।

তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পপি বেগম কুমিল্লা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেছেন।

বৃহস্পতিবার পপি বেগম জানান এর আগেও একাধিকবার আমার ওপর নির্যাতন করেন তার স্বামী খোরশেদ আলম ও তার স্বামীর বড় ভাই হাবিবুর রহমান।

এবার মারধর করেই ক্ষান্ত হয়নি বাড়ি থেকেই বের করে দিয়েছে তারা। জানা গেছে, উপজেলার সদর ইউনিয়নের জগতপুর গ্রামের প্রবাসী খোরশেদ আলমের সঙ্গে পপি প্রেম করে বিয়ে করেন। বিয়ের দীর্ঘ ৮ বছর তাদের সুখের সংসার ছিলে।

ব্যবসা করবে বলে খোরশেদ আলম ও তার বড় ভাই যৌতুক দাবি করে। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে পপি বেগমের মা গৃহকর্মীর কাজ করে খোরশেদ আলমকে নগদ ৫০ হাজার টাকা ও আসবাবপত্র দেন।

কিন্তু এতেও মন ভরেনি তার। সে পুনরায় ১ লাখ টাকা দাবি করে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ পপি বেগম বলেন, আমার মা গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করেন।

কী করে আরও এক লাখ টাকা যৌতুক দেবে। আমার স্বামী আগে অনেক ভালো ছিল তার বড় ভাইয়ের কুপরামর্শ মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে।

বুড়িচংয়ে যৌতুক দাবি

গৃহবধূকে নির্যাতন করে তাড়িয়ে দিল স্বামী

 বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১২ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার যৌতুকের জন্য মাদকাসক্ত স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন দুই সন্তানের মা পপি বেগম।

তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পপি বেগম কুমিল্লা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেছেন।

বৃহস্পতিবার পপি বেগম জানান এর আগেও একাধিকবার আমার ওপর নির্যাতন করেন তার স্বামী খোরশেদ আলম ও তার স্বামীর বড় ভাই হাবিবুর রহমান।

এবার মারধর করেই ক্ষান্ত হয়নি বাড়ি থেকেই বের করে দিয়েছে তারা। জানা গেছে, উপজেলার সদর ইউনিয়নের জগতপুর গ্রামের প্রবাসী খোরশেদ আলমের সঙ্গে পপি প্রেম করে বিয়ে করেন। বিয়ের দীর্ঘ ৮ বছর তাদের সুখের সংসার ছিলে।

ব্যবসা করবে বলে খোরশেদ আলম ও তার বড় ভাই যৌতুক দাবি করে। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে পপি বেগমের মা গৃহকর্মীর কাজ করে খোরশেদ আলমকে নগদ ৫০ হাজার টাকা ও আসবাবপত্র দেন।

কিন্তু এতেও মন ভরেনি তার। সে পুনরায় ১ লাখ টাকা দাবি করে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ পপি বেগম বলেন, আমার মা গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করেন।

কী করে আরও এক লাখ টাকা যৌতুক দেবে। আমার স্বামী আগে অনেক ভালো ছিল তার বড় ভাইয়ের কুপরামর্শ মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন