কুয়াকাটায় তাবলিগের ১৫ সদস্যকে অচেতন করে লুট
jugantor
কুয়াকাটায় তাবলিগের ১৫ সদস্যকে অচেতন করে লুট

  যুগান্তর প্রতিবেদন ও কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের পাশে থাকা মহিপুরে একটি মসজিদে তাবলিগ জামাতের ১৫ সদস্যকে অচেতন করে সর্বস্ব লুটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এদের মধ্যে গুরুতর অসুস্থ আটজনকে রোববার সকালে কুয়াকাটা ২০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার রাতে চেতনানাশক দ্রব্য মেশানো খাবার খাওয়ানোর দাবি তাবলিগ জামাতের সদস্যদের। তাবলিগ জামাতের সদস্য রোমান মিয়া জানান, শনিবার রাতে খাবার খেয়ে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে তিনি কিছুটা সম্বিত ফিরে পেয়ে তার টাকা পয়সা লুট হওয়ার বিষয়টি দেখতে পান। অন্য সাথীদের ঘুম থেকে জাগানোর চেষ্টা করে তিনি ব্যর্থ হন। পরে ফজরের নামাজে স্থানীয় মুসল্লিরা এসে বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশে খবর দেন। এরপর মহিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অসুস্থদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪০নং ওয়ার্ডের ভাটারা থেকে আসা ওই জামাতের হাসপাতালে ভর্তি হওয়া সদস্যরা হলেন- চান মিয়া, আলাউদ্দিন, শেখ ফরিদ, শরীফুল, আজিজুল হক, উজ্জ্বল, রফিকুল ও শুরুজ্জামান।

কুয়াকাটা ২০ শয্যা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. মাহামুদুল হাসান বলেন, খাবারের সঙ্গে চেতনানাশক খাওয়ানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মহিপুর থানার ওসি খায়ের কাওছার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুয়াকাটায় তাবলিগের ১৫ সদস্যকে অচেতন করে লুট

 যুগান্তর প্রতিবেদন ও কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের পাশে থাকা মহিপুরে একটি মসজিদে তাবলিগ জামাতের ১৫ সদস্যকে অচেতন করে সর্বস্ব লুটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এদের মধ্যে গুরুতর অসুস্থ আটজনকে রোববার সকালে কুয়াকাটা ২০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার রাতে চেতনানাশক দ্রব্য মেশানো খাবার খাওয়ানোর দাবি তাবলিগ জামাতের সদস্যদের। তাবলিগ জামাতের সদস্য রোমান মিয়া জানান, শনিবার রাতে খাবার খেয়ে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে তিনি কিছুটা সম্বিত ফিরে পেয়ে তার টাকা পয়সা লুট হওয়ার বিষয়টি দেখতে পান। অন্য সাথীদের ঘুম থেকে জাগানোর চেষ্টা করে তিনি ব্যর্থ হন। পরে ফজরের নামাজে স্থানীয় মুসল্লিরা এসে বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশে খবর দেন। এরপর মহিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অসুস্থদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪০নং ওয়ার্ডের ভাটারা থেকে আসা ওই জামাতের হাসপাতালে ভর্তি হওয়া সদস্যরা হলেন- চান মিয়া, আলাউদ্দিন, শেখ ফরিদ, শরীফুল, আজিজুল হক, উজ্জ্বল, রফিকুল ও শুরুজ্জামান।

কুয়াকাটা ২০ শয্যা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. মাহামুদুল হাসান বলেন, খাবারের সঙ্গে চেতনানাশক খাওয়ানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মহিপুর থানার ওসি খায়ের কাওছার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন