গাংনী পৌরসভায় নিয়োগ বাণিজ্য

একজনের উৎকোচের টাকা ফেরত দিলেন মেয়র

  মেহেরপুর প্রতিনিধি ২১ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দুই বছর তিন মাস আগে মেয়র আশরাফুল ইসলামকে ১০ লাখ টাকা দিয়েছিলাম হিসাব সহকারী পদে চাকরি নেয়ার জন্য। মেয়র নিজেই সেই টাকা শনিবার ফেরত দিলেন। যে বেশি টাকা দিয়েছেন তাকে চাকরি দিয়েছেন। অথচ আমি দুই বছর ১০ মাস চুক্তিভিত্তিক গাংনী পৌরসভায় হিসাব সহকারী হিসেবে কাজ করছি। চাকরি না পেয়ে এখন আমি পথে বসেছি। গাংনী পৌরসভার থানা পাড়ার নাজমুল হুদা সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেন। নাজমুল হুদা শনিবার গাংনী পৌরসভার হিসাব সহকারী পদে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। কিন্তু তাকে চাকরি না দিয়ে অন্যজনের কাছ থেকে তার থেকে বেশি টাকা নিয়ে চাকরি দেয়া হয়েছে। রোববার যুগান্তরে ‘গাংনীতে নিয়োগ বাণিজ্যের চেষ্টা’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদে মেয়র আশরাফুল ইসলাম ও প্যানেল মেয়র নবিরুল ইসলাম যোগসাজশ করে প্রার্থীদের কাছ থেকে অর্ধকোটি টাকা ঘুষ নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষার দিন পাঁচজন চাকরি পেয়ে গেছেন বলে খবর চাউর হয়। অবশেষে ওই পাঁচজনের মধ্যে একজনকে মেয়র টাকা ফেরত দিয়েছেন। অপর দিকে রোববার সকালে প্রকাশিত ফলাফলে বাকি চারজনের চাকরির খবর নিশ্চিত হয়। তবে এ বিষয়ে নিয়োগ বোর্ডের আহবায়ক ও প্যানেল মেয়র নবিরুল ইসলাম বলেন, আমরা মন্ত্রণালয়ের আদেশে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় নিয়োগ সম্পন্ন করেছি। যারা চাকরি পাননি তাদের মধ্যে ক্ষোভ হওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে চাকরি প্রার্থীদের সঙ্গে মেয়র কোনো লেনদেন করেছেন কিনা সেটা মেয়রের বিষয়। কাউকে টাকা ফেরত দিয়েছেন কিনা এ কথাও আমার জানা নেই। ফলাফল প্রকাশের বিলম্বের ব্যাপারে প্যানেল মেয়র বলেন, কম্পিউটার কম্পোজ করে রেডি করতে না পারায় রোববার সকালে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। নিয়োগ বোর্ডের অন্যতম সদস্য ও জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি সহকারী কমিশনার (ভূমি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, শনিবার বিকালেই আমি ফলাফল প্রস্তুত করে দিয়ে এসেছি। নোটিশ বোর্ডে টাঙানোর দায়িত্বটাতো আমার নয়। অভিযুক্ত মেয়র আশরাফুল ইসলাম নাজুমল হুদাকে টাকা ফেরত দেয়ার কথা অস্বীকার করেন। আমি কারও কাছ থেকে টাকা নিইনি। কাউকে ফেরতও দেইনি। তিনি বলেন, এখন আমি পৌরসভার কেউ নই। নিয়োগের বিষয়ে আমি কিছু জানি না।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×