দুর্নীতি ও দলীয়করণের অভিযোগ

রুয়েট ভিসির মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২৮ মে

  রাজশাহী ব্যুরো ২১ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) আগামী ২৮ মে বর্তমান ভিসি অধ্যাপক রফিকুল আলম বেগের মেয়াদকাল শেষ হচ্ছে। এরই মধ্যে রুয়েটের পরবর্তী ভিসি কে হচ্ছেন- তা নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শিক্ষকরা বলছেন, ফের যদি দল পরিবর্তন করে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি সেজে ‘হাইব্রিড’ কেউ ভিসি হিসেবে নিয়োগ পান, তবে রুয়েটে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি বিপর্যয়ের মুখে পড়বে। তাদের দাবি, জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে শিক্ষা এবং গবেষণা কাজে দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্ব সম্পন্ন প্রগতিমনা শিক্ষককে পদটির জন্য বিবেচনা করা হোক। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক এবং প্রশাসনিক কাজে জটিলতা ও অস্থিতিশীলতার সৃষ্টি হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে প্রকৃত মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয়টির অভিভাবক হিসেবে নিয়োগ দেবেন- এটাই তাদের আকাক্সক্ষা। ২০১৪ সালের ২৮ মে অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম বেগ ভিসি নিয়োগ পান। অধ্যাপক রফিকুল ২০০৩ সালের জুনে অনুষ্ঠিত শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতপন্থী প্যানেল থেকে সহসভাপতি পদে নির্বাচন করেন। বিএনপি-জামায়াতপন্থী ইঞ্জিনিয়ারদের সংগঠন অ্যাব-এর প্রার্থী হয়ে রাজশাহী শাখার ভাইস-চেয়ারম্যান হিসেবে ২০০৬-০৭ মেয়াদে নির্বাচন করে আওয়ামীপন্থী প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। দায়িত্ব গ্রহণের পর অধ্যাপক রফিকুল আলম উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা নিয়োগ বোর্ডসহ একাধিক কমিটির দায়িত্ব দেন বিএনপিপন্থী প্রভাবশালী শিক্ষক নেতা এবং অ্যাব নেতা ড. সৈয়দ আবদুল মফিজকে। বিষয়টি নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া বিজ্ঞপ্তির একটি পদের বিপরীতে আটজন শিক্ষক নিয়োগ, এক পদের বিজ্ঞপ্তির বিপরীতে আটজন ডাটা প্রসেসর, ছয়জন বাজেট অফিসার, চারজন সেকশন অফিসার নিয়োগের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। এর মধ্যে ভুয়া সনদ দিয়ে অযোগ্য প্রার্থীরাও চাকরি পান। ২০১৭ সালে বিতর্কিত ঠিকাদার যুবদল নেতা ও রাবি শিক্ষক হত্যা মামলার আসামি আনোয়ার হোসেন উজ্জ্বলকে আড়াই কোটি টাকার কাজ পাইয়ে দেন ভিসি। নিুমানের কাজ হওয়া সত্ত্বেও পরবর্তীতে ফের ৮০ লাখ টাকা বৃদ্ধি করা হয়। নিয়মবহির্ভূতভাবে ৫০ লাখ টাকার এলইডি টিভি ক্রয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। ২০১৭ সালে ১৬ জুলাই সাড়ে ছয় লাখ টাকার চেক জালিয়াতির ঘটনা ঘটে। জালিয়াতির ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও অজ্ঞাত কারণে তা ধামাচাপা পড়ে যায়। অভিযোগ রয়েছে, ভিসি নিজে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য কমিটিকে চাপ সৃষ্টি করে তদন্ত কার্যক্রম বন্ধ রেখেছেন। এ ছাড়া বর্তমান ভিসির মেয়াদে রুয়েটে চুরি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, সংঘর্ষের ঘটনা বৃদ্ধি পায়। সবশেষ বাসচালক আবদুস সালাম হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফলে ক্যাম্পাসজুড়ে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। আর বর্তমান ভিসি অধ্যাপক ড. মোহা. রফিকুল আলম বেগ তার বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তার দাবি- মেয়াদকাল শেষে নোংরা রাজনীতি করছে একটি পক্ষ। তিনি বিগত চার বছর সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। চেষ্টা করেছেন রুয়েটকে শিক্ষা ও গবেষণা কাজে এগিয়ে নিতে।

পরবর্তী ভিসি নিয়োগ নিয়ে গুঞ্জন : প্রশাসনের শীর্ষ পদে নিয়োগ পেতে যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডিন ও গ্লাস অ্যান্ড সিরামিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক শামীমুর রহমান জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। তিনি বর্তমানে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক। প্ল্যানিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কমিটির ডিরেক্টর ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক আবদুল আলিমের নামও ভিসি হিসেবে আলোচিত হচ্ছে।

এ ছাড়া কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ও সিন্ডিকেট সদস্য শহীদ-উজ-জামান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি, বর্তমান ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক এনএইচএম কামরুজ্জামান সরকার নিয়োগ পেতে তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম শেখ এবং পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. তারিফ উদ্দীন আহমেদ পরবর্তী ভিসি হিসেবে

নিয়োগ পাওয়ার দৌড়ে রয়েছেন বলে রুয়েট

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.