হাইমচরে মৎস্য ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল
jugantor
হাইমচরে মৎস্য ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল

  চাঁদপুর প্রতিনিধি  

২৫ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চাঁদপুরের হাইমচরে বাচ্চু মোল্লা নামে এক মৎস্য ব্যবসায়ীর মৃত্যুকে ঘিরে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বলছেন হত্যা, কেউ বলছেন দুর্ঘটনায় মৃত্যু, আবার কেউ বলছেন স্বাভাবিক মৃত্যু, কেউ বা বলছেন করোনায় মৃত্যু। তবে এ নিয়ে নানা আলোচনা চললেও থানায় এ নিয়ে কোনো অভিযোগ করেননি কেউ। জানা যায়, ২০ জানুয়ারি সকালে নদীতে ইলিশ সংরক্ষণ কর্মসূচির নিয়মিত অভিযানে নামে উপজেলা মৎস্য র্কমর্কতা, পুলিশ ও কোস্টগার্ড। এ সময় হাইমচর বাজার মাছঘাটে ৫০০ কেজি জাটকা জব্দ করা হয়। অভিযানকারীদের সঙ্গে কারো কোনোপ্রকার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি বলে প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্টরা জানান। পরে জানা যায়, অভিযানের সংবাদ শুনে জাটকা ক্রেতা-বিক্রেতারা দৌড়ে পালানোর সময় বাচ্চু মোল্লা নামে ওই মৎস্য ব্যবসায়ী কিছুর সঙ্গে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে আহত হন। তাৎক্ষণিক তাকে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর শুক্রবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দেওয়া মৃত্যু সনদে বাচ্চু মোল্লা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন বলে উল্লেখ করা হয়। এদিকে তার মৃত্যু সংবাদের পর একটি মহল উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার লাঠির আঘাতে তার মৃত্যু হয় বলে প্রচার করতে থাকেন। এ ব্যাপারে হাইমচর উপজেলা সিনিয়র (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মৎস্য কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘ওইদিন এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

হাইমচরে মৎস্য ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল

 চাঁদপুর প্রতিনিধি 
২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চাঁদপুরের হাইমচরে বাচ্চু মোল্লা নামে এক মৎস্য ব্যবসায়ীর মৃত্যুকে ঘিরে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বলছেন হত্যা, কেউ বলছেন দুর্ঘটনায় মৃত্যু, আবার কেউ বলছেন স্বাভাবিক মৃত্যু, কেউ বা বলছেন করোনায় মৃত্যু। তবে এ নিয়ে নানা আলোচনা চললেও থানায় এ নিয়ে কোনো অভিযোগ করেননি কেউ। জানা যায়, ২০ জানুয়ারি সকালে নদীতে ইলিশ সংরক্ষণ কর্মসূচির নিয়মিত অভিযানে নামে উপজেলা মৎস্য র্কমর্কতা, পুলিশ ও কোস্টগার্ড। এ সময় হাইমচর বাজার মাছঘাটে ৫০০ কেজি জাটকা জব্দ করা হয়। অভিযানকারীদের সঙ্গে কারো কোনোপ্রকার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি বলে প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্টরা জানান। পরে জানা যায়, অভিযানের সংবাদ শুনে জাটকা ক্রেতা-বিক্রেতারা দৌড়ে পালানোর সময় বাচ্চু মোল্লা নামে ওই মৎস্য ব্যবসায়ী কিছুর সঙ্গে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে আহত হন। তাৎক্ষণিক তাকে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর শুক্রবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দেওয়া মৃত্যু সনদে বাচ্চু মোল্লা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন বলে উল্লেখ করা হয়। এদিকে তার মৃত্যু সংবাদের পর একটি মহল উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার লাঠির আঘাতে তার মৃত্যু হয় বলে প্রচার করতে থাকেন। এ ব্যাপারে হাইমচর উপজেলা সিনিয়র (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মৎস্য কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘ওইদিন এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন