বাকৃবিতে ১৬ গবেষক ও চার খামারিকে সম্মাননা
jugantor
বাকৃবিতে ১৬ গবেষক ও চার খামারিকে সম্মাননা

  বাকৃবি প্রতিনিধি  

২৯ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের (বাউরেস) ‘উন্নত ভবিষ্যতের পথে টেকসই ও অভিযোজিত কৃষি’ শীর্ষক ৩ দিনব্যাপী গবেষণা অগ্রগতিবিষয়ক বার্ষিক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে গবেষণার এইচ-ইনডেক্সের ওপর ভিত্তি করে বাকৃবির মোট ১৬ জন গবেষককে গ্লোবাল রিসার্চ ইমপ্যাক্ট রিকগনাইজেশন অ্যাওয়ার্ড-২০২২’ প্রদান করা হয়। এছাড়া কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে কৃষি উৎপাদনে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামারি পর্যায়ের ৪ জন উদ্যোক্তাকে ‘প্রফেসর ড. আশরাফ আলী খান স্মৃতি কৃষি পুরস্কার-২০২২’ পুরস্কৃত করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্ত বাকৃবির ১৬ গবেষক হলেন-কৃষিতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রমিজ উদ্দিন, মাইক্রোবায়োলজি অ্যান্ড হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. তানভীর রহমান, মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. এনামুল হক, প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এমদাদুল হক চৌধুরী, ফিশারিজ বায়োলজি ও জেনেটিক্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. সামছুল আলম, প্যারাসাইটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুল আলীম, পশুপুষ্টি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল মামুন, কৃষি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. তাজ উদ্দিন, কৃষিতত্ত্ব বিভাগ অধ্যাপক ড. মো. পারভেজ আনোয়ার, ফিশারিজ ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. সালেহা খান, সেচ ও পানি ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এমজি মোস্তফা আমিন, মাইক্রোবায়োলজি অ্যান্ড হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. এসএম লুৎফুল কবির, প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুল হান্নান, গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. লাভলু মজুমদার, কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রুস্তম আলী এবং একোয়াকালচার বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. শাহরিয়ার হাশেম। এছাড়া কৃষিতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামারি পর্যায়ের চারজন উদ্যোক্তাকে পুরস্কৃত করা হয়। সমন্বিত কৃষি খামার ব্যবস্থাপনায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য শেরপুর সদরের কৃষক মো. হযরত আলী, মৎস্য চাষে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ময়মনসিংহ সদরের কৃষক নুরুল হক, পোলট্রি শিল্পে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার কৃষক হারুন-অর-রশিদ এবং ডেইরি শিল্পে বিশেষ অবদান রাখার জন্য কৃষক মো. সুরুজ্জামান সুরুজ ওই পুরস্কারপ্রাপ্ত হন। বাউরেসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আবু হাদী নূর আলী খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামছুল আলম। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান কৃষিবিদ ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার এবং এসিআই এগ্রিবিজনেসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রতিষ্ঠাতা ড. এফএইচ আনসারী। কর্মশালার প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসাবে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান।

বাকৃবিতে ১৬ গবেষক ও চার খামারিকে সম্মাননা

 বাকৃবি প্রতিনিধি 
২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের (বাউরেস) ‘উন্নত ভবিষ্যতের পথে টেকসই ও অভিযোজিত কৃষি’ শীর্ষক ৩ দিনব্যাপী গবেষণা অগ্রগতিবিষয়ক বার্ষিক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে গবেষণার এইচ-ইনডেক্সের ওপর ভিত্তি করে বাকৃবির মোট ১৬ জন গবেষককে গ্লোবাল রিসার্চ ইমপ্যাক্ট রিকগনাইজেশন অ্যাওয়ার্ড-২০২২’ প্রদান করা হয়। এছাড়া কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে কৃষি উৎপাদনে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামারি পর্যায়ের ৪ জন উদ্যোক্তাকে ‘প্রফেসর ড. আশরাফ আলী খান স্মৃতি কৃষি পুরস্কার-২০২২’ পুরস্কৃত করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্ত বাকৃবির ১৬ গবেষক হলেন-কৃষিতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রমিজ উদ্দিন, মাইক্রোবায়োলজি অ্যান্ড হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. তানভীর রহমান, মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. এনামুল হক, প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এমদাদুল হক চৌধুরী, ফিশারিজ বায়োলজি ও জেনেটিক্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. সামছুল আলম, প্যারাসাইটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুল আলীম, পশুপুষ্টি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল মামুন, কৃষি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. তাজ উদ্দিন, কৃষিতত্ত্ব বিভাগ অধ্যাপক ড. মো. পারভেজ আনোয়ার, ফিশারিজ ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. সালেহা খান, সেচ ও পানি ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এমজি মোস্তফা আমিন, মাইক্রোবায়োলজি অ্যান্ড হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. এসএম লুৎফুল কবির, প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুল হান্নান, গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. লাভলু মজুমদার, কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রুস্তম আলী এবং একোয়াকালচার বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. শাহরিয়ার হাশেম। এছাড়া কৃষিতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামারি পর্যায়ের চারজন উদ্যোক্তাকে পুরস্কৃত করা হয়। সমন্বিত কৃষি খামার ব্যবস্থাপনায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য শেরপুর সদরের কৃষক মো. হযরত আলী, মৎস্য চাষে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ময়মনসিংহ সদরের কৃষক নুরুল হক, পোলট্রি শিল্পে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার কৃষক হারুন-অর-রশিদ এবং ডেইরি শিল্পে বিশেষ অবদান রাখার জন্য কৃষক মো. সুরুজ্জামান সুরুজ ওই পুরস্কারপ্রাপ্ত হন। বাউরেসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আবু হাদী নূর আলী খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামছুল আলম। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান কৃষিবিদ ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার এবং এসিআই এগ্রিবিজনেসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রতিষ্ঠাতা ড. এফএইচ আনসারী। কর্মশালার প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসাবে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন