কলেজ শিক্ষক লাঞ্ছিত

কেন্দুয়ায় ৬ ছাত্রের বিরুদ্ধে দ্রুতবিচার আইনে মামলা

  কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি ২৩ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কেন্দুয়া ডিগ্রি কলেজে অনুষ্ঠিত একাদশ শ্রেণীর বর্ষ সমাপনী পরীক্ষায় নকলের সুযোগ না দেয়া ও কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক আবদুল কাদের নয়নকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ এনে একই কলেজের ৬ ছাত্রের বিরুদ্ধে দ্রুতবিচার আইনে মামলা করেছেন অধ্যক্ষ উত্তম কুমার কর। মামলার আসামিরা হলেন- আপেল মাহমুদ, মোহন, রনি, জানু মোবারক ও আজহারুল।

এদিকে মামলার এজাহারে বর্ণিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা আখ্যা দিয়ে অধ্যক্ষ ও শিক্ষক আবদুল কাদের নয়নের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ন-দুর্নীতির পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন অভিযুক্ত ছাত্ররা। তারা এক লিখিত বক্তব্যে জানান, অধ্যক্ষ ও শিক্ষক নয়নের বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় উল্টো অধ্যক্ষ আমাদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছেন। অভিযুক্ত শিক্ষার্থী আপেল মাহমুদ জানান, সাধারণ শিক্ষার্থীদের কাছে কলেজের পাওনাদি বেশি হওয়ায় আমরা তা কমানোসহ কলেজের পরিত্যক্ত শহীদ মিনার সংস্কার করার দাবি করে আসছিলাম। অধ্যক্ষ ও শিক্ষক নয়নের বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় উল্টো অধ্যক্ষ আমাদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছেন। কেন্দুয়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ও মামলার বাদী উত্তম কুমার করের সঙ্গে তার মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, শিক্ষক লাঞ্ছিত হওয়ার প্রতিবাদে চলতি বর্ষ সমাপনী পরীক্ষা ও সব পাঠদান কার্যক্রম বর্জন করা হয়েছে। কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমারত হোসেন গাজী মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অধ্যক্ষের এজাহারের প্রেক্ষিতে ৬ জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত ৮-১০ জনের বিরুদ্ধে সোমবার রাতেই দ্রুতবিচার আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.