খালিয়াজুরিতে এলাকাবাসীর প্রতিবাদে ফেরত
jugantor
প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ
খালিয়াজুরিতে এলাকাবাসীর প্রতিবাদে ফেরত

  নেত্রকোনা প্রতিনিধি  

০২ জুলাই ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে সরকারের একটি প্রকল্প কাজ না করেই প্রকল্পটির বিপরীতে টাকা তুলে নেয়ায় অভিযোগ উঠেছে। পরে এলাকবাসীর প্রতিবাদের মুখে সেই আত্মসাৎকৃত টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের বার্ষিক উন্নয়ন সহায়তা খালিয়াজুরী কৃষ্ণপুর আব্দুল জব্বার রাবেয়া খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সীমানা প্রাচীর নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজটি পায় মেসার্স মোতাহার এন্টারপ্রাইজ ৮ লাখ টাকা বরাদ্দের ওই প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ ২০২১-২২ অর্থবছরে শেষ করে প্রকল্পটির বিপরীতে টাকা উত্তোলন করার নিয়ম ছিল। কিন্তু প্রকল্পের কাজ কিছুই না করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যোগসাজশে ২৩ জুন টাকা তুলে আত্মসাৎ এর পায়তারা করেছিল ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী। একপর্যায়ে কাজ না করে প্রকল্পের টাকা উত্তোলন করা হয়েছে এমন খবর চাউর হয়। পরে এ নিয়ে এলাকাবাসী ব্যাপক প্রতিবাদ করলে ৩০ জুন সেই টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দেয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী।

এ ব্যাপারে এলজিইডির খালিয়াজুরী উপজেলা প্রকৌশলী মুমিনুল ইসলাম বলেন, ওই প্রকল্পটির টাকা ভুলবশত ঠিকাদারকে দেয়া হয়েছিল। পরে ঠিকাদারের কাছ থেকে টাকা ফেরত আনার মাধ্যমে ভুলটি সংশোধন করা হয়েছে।

প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ

খালিয়াজুরিতে এলাকাবাসীর প্রতিবাদে ফেরত

 নেত্রকোনা প্রতিনিধি 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে সরকারের একটি প্রকল্প কাজ না করেই প্রকল্পটির বিপরীতে টাকা তুলে নেয়ায় অভিযোগ উঠেছে। পরে এলাকবাসীর প্রতিবাদের মুখে সেই আত্মসাৎকৃত টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের বার্ষিক উন্নয়ন সহায়তা খালিয়াজুরী কৃষ্ণপুর আব্দুল জব্বার রাবেয়া খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সীমানা প্রাচীর নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজটি পায় মেসার্স মোতাহার এন্টারপ্রাইজ ৮ লাখ টাকা বরাদ্দের ওই প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ ২০২১-২২ অর্থবছরে শেষ করে প্রকল্পটির বিপরীতে টাকা উত্তোলন করার নিয়ম ছিল। কিন্তু প্রকল্পের কাজ কিছুই না করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যোগসাজশে ২৩ জুন টাকা তুলে আত্মসাৎ এর পায়তারা করেছিল ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী। একপর্যায়ে কাজ না করে প্রকল্পের টাকা উত্তোলন করা হয়েছে এমন খবর চাউর হয়। পরে এ নিয়ে এলাকাবাসী ব্যাপক প্রতিবাদ করলে ৩০ জুন সেই টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দেয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী।

এ ব্যাপারে এলজিইডির খালিয়াজুরী উপজেলা প্রকৌশলী মুমিনুল ইসলাম বলেন, ওই প্রকল্পটির টাকা ভুলবশত ঠিকাদারকে দেয়া হয়েছিল। পরে ঠিকাদারের কাছ থেকে টাকা ফেরত আনার মাধ্যমে ভুলটি সংশোধন করা হয়েছে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন