মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মারকলিপি
jugantor
সরাইলে আ.লীগ নেতা আজাদ হত্যা
মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মারকলিপি

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

১১ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি একেএম ইকবাল আজাদ হত্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন সরাইলের কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা। বুধবার তারা ইউএনও মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই স্মারকলিপি প্রদান করেন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, গত ২৭ জুন প্রয়াত একেএম ইকবাল আজাদের সহধর্মিণী, সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম ওরফে শিউলী আজাদ জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তার স্বামীর হত্যার বিচার চেয়েছেন। সেখানে তিনি (সংসদ সদস্য) মিথ্যা বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। স্মারকলিপিতে সংসদ সদস্যর এই বক্তব্যের নিন্দা করা হয় ও পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধারা ওই মামলাকে মিথ্যা আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাহারের দাবি করেছেন।

স্মারকলিপিতে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ইসমত আলী ও সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আনোয়ার হোসেন ছাড়াও ২৫ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বাক্ষর করেছেন। স্মারকলিপি প্রদানের সময় উপজেলা চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ, ২০১২ সালের ২১ অক্টোবর উপজেলা সদরে খুন হন উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সিনিয়র সহ-সভাপতি একেএম ইকবাল আজাদ।

সরাইলে আ.লীগ নেতা আজাদ হত্যা

মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মারকলিপি

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
১১ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি একেএম ইকবাল আজাদ হত্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন সরাইলের কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা। বুধবার তারা ইউএনও মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই স্মারকলিপি প্রদান করেন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, গত ২৭ জুন প্রয়াত একেএম ইকবাল আজাদের সহধর্মিণী, সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম ওরফে শিউলী আজাদ জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তার স্বামীর হত্যার বিচার চেয়েছেন। সেখানে তিনি (সংসদ সদস্য) মিথ্যা বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। স্মারকলিপিতে সংসদ সদস্যর এই বক্তব্যের নিন্দা করা হয় ও পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধারা ওই মামলাকে মিথ্যা আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাহারের দাবি করেছেন।

স্মারকলিপিতে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ইসমত আলী ও সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আনোয়ার হোসেন ছাড়াও ২৫ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বাক্ষর করেছেন। স্মারকলিপি প্রদানের সময় উপজেলা চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ, ২০১২ সালের ২১ অক্টোবর উপজেলা সদরে খুন হন উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সিনিয়র সহ-সভাপতি একেএম ইকবাল আজাদ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন