দশমিনায় এসআইয়ের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ
jugantor
দশমিনায় এসআইয়ের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

  দশমিনা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পট্য়ুাখালীর দশমিনায় এক এসআইয়ের বিরুদ্ধে জমি দখলের চেষ্টা ও প্রভাব বিস্তার করে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত এসআইয়ের নাম মো. বেলায়েত হোসেন। তিনি পিরোজপুর জেলায় ডিএসবিতে কর্মরত আছেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে উপজেলা সদরের ডাকবাংলো অডিটোরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মো. খলিলুর রহমান সিকদার নামে এক ভুক্তভোগী।

সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, পিরোজপুর জেলায় ডিএসবিতে কর্মরত এসআই মো. বেলায়েত হোসেন দশমিনা উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের চরহোসনাবাদ গ্রামের মো. খলিলুর রহমান সিকদারের সাড়ে ২৩ শতাংশ জমি ভুয়া দলিল করে নিজের বলে দাবি করেন।

এ নিয়ে খলিলুর রহমান সিকদারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে খলিলুর রহমান মামলা করলে এসআই বেলায়েত তাকে নানাভাবে হয়রানি করেন এবং বারবার প্রভাব বিস্তার করে মিথ্যা প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করাচ্ছেন।

অভিযোগের বিষয় এসআই বেলায়েত হোসেন যুগান্তরকে বলেন, অভিযোগ সত্য নয়। তিনি ১০ বছর আগে জমি কিনেছেন। জমি তার দখলে আছে। তিনি কাউকে হয়রানি করছেন না। বরং তাকে হয়রানি করা হচ্ছে।

দশমিনায় এসআইয়ের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

 দশমিনা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পট্য়ুাখালীর দশমিনায় এক এসআইয়ের বিরুদ্ধে জমি দখলের চেষ্টা ও প্রভাব বিস্তার করে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত এসআইয়ের নাম মো. বেলায়েত হোসেন। তিনি পিরোজপুর জেলায় ডিএসবিতে কর্মরত আছেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে উপজেলা সদরের ডাকবাংলো অডিটোরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মো. খলিলুর রহমান সিকদার নামে এক ভুক্তভোগী।

সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, পিরোজপুর জেলায় ডিএসবিতে কর্মরত এসআই মো. বেলায়েত হোসেন দশমিনা উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের চরহোসনাবাদ গ্রামের মো. খলিলুর রহমান সিকদারের সাড়ে ২৩ শতাংশ জমি ভুয়া দলিল করে নিজের বলে দাবি করেন।

এ নিয়ে খলিলুর রহমান সিকদারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে খলিলুর রহমান মামলা করলে এসআই বেলায়েত তাকে নানাভাবে হয়রানি করেন এবং বারবার প্রভাব বিস্তার করে মিথ্যা প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করাচ্ছেন।

অভিযোগের বিষয় এসআই বেলায়েত হোসেন যুগান্তরকে বলেন, অভিযোগ সত্য নয়। তিনি ১০ বছর আগে জমি কিনেছেন। জমি তার দখলে আছে। তিনি কাউকে হয়রানি করছেন না। বরং তাকে হয়রানি করা হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন