সাঁথিয়া ও গোপালপুরে নিুমানের চারা বিতরণের অভিযোগ

  সাঁথিয়া ও গোপালপুর প্রতিনিধি ২০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের স্মরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বছর সারা দেশে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩০ লাখ বৃক্ষরোপণের যে কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন সাঁথিয়ায় তা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করেছেন চারাগাছ গ্রহণকারী বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানরা। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাঁথিয়ার ১৭৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৮০টি কলেজ, মাদ্রাসা ও উচ্চবিদ্যালয়ে ৪ হাজার ৭৬৯ চারাগাছ বিতরণ করা হয়। চারাগাছ অত্যন্ত দুর্বল, ছোট ও মানসম্মত না হওয়ায় শিক্ষকরা ইউএনও’র কাছে তা গ্রহণ করতে অনীহা প্রকাশ করেন। শিক্ষকদের অনীহার জবাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম অসন্তোষ প্রকাশ করে সরকারি নির্দেশনা মেনে এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করার আহ্বান জানান। শিক্ষকদের মতে এ ধরনের দুর্বল ও নিুমানের চারাগাছ লাগিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছার বাস্তবায়ন দুরূহ ব্যাপার। চারাগাছ ক্রয়কালে এর মান সম্পর্কে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন ছিল।

এদিকে গোপালপুরে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের গাছের চারা বিতরণ কর্মসূচি ব্যাপক বিতর্কের মুখে পড়েছে। বিনামূল্যে সরবরাহ করা নিুমানের এসব চারা অনেক শিক্ষার্থীরা গ্রহণ করেনি। বুধবার দুপুরে গোপালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলরুবা শারমীনের সরকারি বাসভবনের সামনে বিপুল পরিমাণ নিুমানের গাছের চারা পড়ে থাকতে দেখা যায়। ফলে সরকারি এ কর্মসূচি নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন এলাকাবাসীরা।

জানা যায়, কর্মসূচির আওতায় গোপালপুর উপজেলার ১৬১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৭টি কলেজ এবং ৭২টি হাইস্কুল মাদ্রাসায় ১৩ হাজার ৪৪০টি গাছের চারার চাহিদার কথা বলা হয়। গত মঙ্গলবার মধুপুর রেঞ্জ অফিস থেকে বনবিভাগ ১৯ হাজার ৬৭৮টি চারা সরবরাহ করা হয়। দেশীয় জাতের গাছের চারা সরবরাহের কথা থাকলেও বন বিভাগ আকাশমনি, মেহগনি, গর্জনসহ বিদেশি গাছের চারা সরবরাহ করে। এসব চারা আকারে খুবই ছোট ও রুগ্ন। পলিথিনে মোড়ানো এসব বনজ চারা এতটাই ক্ষুদ্রকার ও দুর্বল যে তা লাগানোর অনুপযোগী। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলরুবা শারমীনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.